Advertisement
১৪ জুন ২০২৪
Covaxin

Bharat Biotech: কোভ্যাক্সিনের মান ভাল নয়, ভারত বায়োটেকের বরাত বাতিল করার পথে হাঁটছে প্যারাগুয়ে

এর আগে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা কোভ্যাক্সিনের ছাড়পত্র তুলে নেয়। ব্রাজিলে টিকা নিয়ে অনিয়মের অভিযোগে বাতিল হয় বরাত। এ বার সমস্যা প্যারাগুয়েতে।

ফাইল ছবি।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৭ জুন ২০২২ ১৮:০৯
Share: Save:

করোনাকালে কোভ্যাক্সিন টিকা শুধু দেশেই নয়, বিদেশের বহু দেশেও সরবরাহ করেছিল ভারত বায়োটেক। কিন্তু এ বার টিকার মানের উপর প্রশ্ন তুলে ভারত বায়োটেকের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে চলেছে দক্ষিণ আমেরিকার প্যারাগুয়ে। এ বিষয়ে এখনও ভারত বায়োটেকের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

করোনা অতিমারি চলাকালীন, দক্ষিণ আমেরিকার দেশ প্যারাগুয়ে টিকার দরপত্র আহ্বান করেছিল। তাইওয়ানের সহায়তায় প্যারাগুয়েতে টিকা সরবরাহের বরাত পায় ভারত বায়োটেক। মূলত প্যারাগুয়ের টিকার বাজার থেকে চিনকে দূরে রাখার প্রয়াস ছিল এটি। কিন্তু এখন সেই টিকারই মান নিয়ে প্রশ্ন তুলে বরাত বাতিল করে দেওয়ার পথে হাঁটছে জো লুই চিলেভার্টের দেশ।

প্যারাগুয়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জুলিয়ো বোরবা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ভারতীয় সংস্থা ভারত বায়োটেকের সঙ্গে টিকা ক্রয় সংক্রান্ত চুক্তি বাতিল করা হচ্ছে। সে দেশে মোট ১০ লক্ষ কোভ্যাক্সিন টিকা পাঠানোর কথা ছিল ভারত বায়োটেকের।

এ বিষয়ে এখনও ভারত বায়োটেকের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাটির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আধিকারিককে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থার দাবি, এই ঘটনার প্রেক্ষিতে আপাতত বিদেশে টিকা পাঠানো বন্ধ রাখা হয়েছে।

এর আগে গত ১ এপ্রিল বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা কোভ্যাক্সিনের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিবৃতি জারি করেছিল। এর পরই রাষ্ট্রপুঞ্জের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভাগ কম এবং মাঝারি আয় সম্পন্ন দেশে কোভ্যাক্সিন সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। গত বছর প্যারাগুয়ের আর এক প্রতিবেশী ব্রাজিলে অনিয়মের অভিযোগে বাতিল হয় কোভ্যাক্সিনের বরাত। এ বার প্যারাগুয়েতেও একই রকম সমস্যার মুখে ভারতজাত করোনার টিকা কোভ্যাক্সিন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Covaxin Bharat Biotech
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE