Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ঘুরপথে দাম বাড়ছে টিকিটের

নিজেরাই ভাড়া ঠিক করবে বেসরকারি রেল

গত ডিসেম্বরে ১০৯টি রুট বেসরকারি অপারেটর-দের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় মোদী সরকার। ঠিক হয়, ওই রুটগুলিতে ১৫১টি ট্রেন চালানো হবে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০৫:৪৩
আইআরসিটিসি পরিচালিত তেজস এক্সপ্রেসের অন্দরমহল। —ফাইল চিত্র

আইআরসিটিসি পরিচালিত তেজস এক্সপ্রেসের অন্দরমহল। —ফাইল চিত্র

বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া ট্রেনগুলির ভাড়া নির্ধারণ করার ক্ষমতা ওই সব বেসরকারি সংস্থার হাতেই থাকবে বলে জানাল রেল। এর ফলে বেসরকারি সংস্থাগুলিকে লাভের মুখ দেখতে গেলে টিকিটের যে দাম বাড়াতে হবে, সে বিষয়ে নিশ্চিত রেলকর্তারা। যদিও রেল মন্ত্রক সূত্রের বক্তব্য, সংশ্লিষ্ট রুটের বাতানুকুল বাস এবং বিমানভাড়ার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওই ট্রেনের ভাড়া স্থির করা হবে বলে জানিয়েছে রেল। একই সঙ্গে রেল জানিয়েছে, আগামী দিনে বিমানবন্দরের মতো স্টেশনেও ‘ইউজার ফি’ বা ব্যবহারের খরচ হিসেবে বাড়তি অর্থ দিতে হবে যাত্রীকে। আয় বাড়াতেই ওই পদক্ষেপ বলে দাবি রেলের। এতে ফের এক দফা ঘুরিয়ে দাম বাড়ছে ট্রেনের টিকিটের।

গত ডিসেম্বরে ১০৯টি রুট বেসরকারি অপারেটর-দের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় মোদী সরকার। ঠিক হয়, ওই রুটগুলিতে ১৫১টি ট্রেন চালানো হবে। যেগুলির শুধু মাত্র পরিচালনব্যবস্থা রেলের হাতে থাকবে। বাকি টিকিট বিক্রি থেকে পরিষেবা, সবই বেসরকারি সংস্থার হাতে থাকবে। রেল জানিয়েছে, তেজস বা হামসফরের মতো ট্রেনগুলিও বেসরকারি হাতে দেওয়া হবে। ওই সব ট্রেনে চালক ও গার্ড জোগান দেবে রেল। বিনিময়ে রেলের কোচ-কামরা ব্যবহারের খরচ, বিদ্যুতের খরচ মেটাবে বেসরকারি সংস্থাগুলি। তবে প্রথম ৩৫ বছরের জন্য তাদের কিছুটা ছাড় দেবে রেল।

গোড়া থেকেই ওই ট্রেনগুলির ভাড়া নিয়ে প্রশ্ন ছিল। আজ রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান বিনোদ কুমার যাদব বলেন, ‘‘এ ক্ষেত্রে ভাড়া স্থির করার ক্ষমতা থাকবে বেসরকারি সংস্থার হাতে। তবে ওই রুটে বেসরকারি বাস ও বিমানের ভাড়া পর্যালোচনা করেই রেলের ভাড়া চূড়ান্ত করা হবে।’’ বেসরকারি ট্রেনের ভাড়া যে রাজধানী-শতাব্দীর চেয়েও বেশি হবে, তা স্পষ্ট রেলকর্তাদের কথায়। তাঁদের মতে, ‘‘ওই ট্রেনগুলিতে উন্নত মানের পরিষেবা দেওয়া হবে। দ্রুত গতি সম্পন্ন হওয়ায় সেগুলি কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছবে। তা ছাড়া বেসরকারি সংস্থাগুলি রেলকে চুক্তির বাৎসরিক অর্থ মেটাতে বাধ্য থাকবে। তার পরে নিজেদের লাভ। ফলে টিকিটের দাম বাড়বেই, এটা নিশ্চিত ভাবে বলা যায়। তবে কত বাড়বে তা এখনই বলা যাচ্ছে না।’’ বর্তমানে দূরপাল্লার ট্রেনে যাত্রীরা বিভিন্ন ধরনের ছাড়ের সুযোগ পান। বেসরকারি ট্রেনে তা বাদ। এমনকি বয়স্ক নাগরিক, ক্যানসার রোগী বা জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্তরাও ছাড় পাবেন না বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘ধার করে চলছে কেন্দ্রের সরকার’, বললেন নির্মলা

আরও পড়ুন: চাষিদের থেকে সরকার আর ধান-গম কিনবে না, এটা মনগড়া কাহিনি: মোদী

আয় বাড়াতে দেশের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে ট্রেন ধরতে আসা বা ট্রেন থেকে নামা যাত্রীদের থেকে ‘ইউজার ফি’ নেবে রেল। যাদব বলেন, ‘‘সাত হাজার স্টেশনের মধ্যে মাত্র ১০ থেকে ১৫ শতাংশ স্টেশন ব্যবহারের জন্য ওই বাড়তি অর্থ নেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement