×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

‘বিজেপিতে যাচ্ছি না’, দলবদলের জল্পনার মাঝেই বলছেন সচিন

সংবাদ সংস্থা
জয়পুর১৩ জুলাই ২০২০ ১২:৫১
সচিন পাইলট। —ফাইল চিত্র

সচিন পাইলট। —ফাইল চিত্র

মধ্যপ্রদেশে কমল নাথের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। ‘হাত’ছাড়া হয়েছিল মধ্যপ্রদেশ। চার মাস পর সেই কাণ্ডেরই কি পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে রাজস্থানে? মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌতের সঙ্গে টানাপড়েনের জেরে কংগ্রেস ছেড়ে কি এ বার বিজেপিতে যোগ দেবেন সচিন পাইলট? মরুরাজ্যের কংগ্রেস সভাপতির রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে যখন জল্পনা জোরদার, তখন সচিন সাফ জানিয়ে দিচ্ছেন, ‘‘বিজেপিতে যাচ্ছি না।’’

অশোক গহলৌত এবং সচিন পাইলটের দ্বন্দ্ব এখন তুঙ্গে। এই আবহেই রাজস্থান ছেড়ে সঙ্গীসাথীদের নিয়ে দিল্লিতে ঘাঁটি গেড়েছেন সচিন। এর মাঝেই খবর ছড়িয়ে পড়ে, সোমবার বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডার সঙ্গে দেখা করতে চলেছেন তিনি। ফলে সচিনের দলবদলের জল্পনা আরও জোরালো হয়ে ওঠে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ যখন মধ্যপ্রদেশের সঙ্গে রাজস্থানের রাজনৈতিক অঙ্ক মেলাতে ব্যস্ত, তখন অবশ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন সচিন। এনডিটিভি-কে এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ‘‘বিজেপিতে যাচ্ছি না।’’

এ দিন দলীয় বিধায়কদের পরিষদীয় বৈঠকে তলব করেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত। এ জন্য  হুইপও জারি করেছেন তিনি। সেই বৈঠকে তিনি যে যোগ দিচ্ছেন না, তা-ও স্পষ্ট করে দিয়েছেন সচিন পাইলট। দলের তরফে সচিনকে বৈঠকে উপস্থিত থাকার বার্তা দিয়েছেন রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা। তাঁর মন্তব্য, ‘‘দলে মতপার্থক্য হতে পারে। কিন্তু সে জন্য দলকে দুর্বল করা উচিত নয়। সচিন ও অন্যান্য বিধায়কদের জন্য কংগ্রেসের দরজা খোলা।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, উত্তপ্ত হেমতাবাদ, তীব্র আক্রমণে বিজেপি

রাজস্থানে কংগ্রেসের এই অন্তর্কলহের জল অবশ্য কত দূর গড়ায়, গোড়া থেকেই সে দিকে নজর রাখছে বিজেপি। গেরুয়া শিবির সূত্রে জানা যাচ্ছে, সোমবার অশোক গহলৌত বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তার উপরে নির্ভর করবে দলের পদক্ষেপ। এর মধ্যেই রাজস্থানের ঘটনাক্রম নিয়ে টুইটে কংগ্রেসকে খোঁচা দিয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। তিনি লেখেন, “প্রাক্তন সহকর্মী সচিন পাইলটকেও যে ভাবে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত কোণঠাসা করার চেষ্টা করছেন, তা দেখে মর্মাহত। প্রতিভা, দক্ষতার মূল্য খুবই কম কংগ্রেসে।”

আরও পড়ুন: রাজস্থানে সরকার সুরক্ষিত, গভীর রাতে অভূতপূর্ব সাংবাদিক বৈঠক করে দাবি কংগ্রেসের

গত লোকসভা ভোটে জোধপুর থেকে গহলৌতের ছেলের টিকিট পাওয়া নিয়ে আপত্তি তোলেন সচিন। ছেলের হারের দায় সচিনের কাঁধে চাপান গহলৌত। এর পর অশোক অভিযোগ করেন, তাঁর সরকার ফেলার চেষ্টা হচ্ছে। তার তদন্তের জন্যই সচিনের বয়ান রেকর্ড করতে চেয়ে নোটিস পাঠায় পুলিশ। সেই সময়েও সচিন দাবি করেন, কেউ দল ছাড়ছেন না। তিনি নিজেও বিজেপিতে যাচ্ছেন না।

Advertisement