×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

নেতাজি জয়ন্তীর বক্তৃতার শেষেও মোদীর মুখে সোনার বাংলা গড়ার ডাক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ২২:২৮
বক্তব্য রাখছেন নরেন্দ্র মোদী।

বক্তব্য রাখছেন নরেন্দ্র মোদী।
ছবি: পিটিআই

সাড়ে ৩২ মিনিটের বক্তৃতায় ৩০ মিনিট জুড়ে প্রধানমন্ত্রী বললেন নেতাজি, বাংলার অতীত আর আত্মনির্ভর ভারত নিয়ে। শেষ আড়াই মিনিটে তিনি বুঝিয়ে দিলেন কয়েক মাসের মধ্যেই ভোট আসছে বাংলায়।

নেতাজির জন্মদিন উপলক্ষে শনিবার রাজ্যে আসেন নরেন্দ্র মোদী। মূল অনুষ্ঠান ছিল ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে। সেখানে তিনি বলেন, “সোনার বাংলা আমাদের সবচেয়ে বড় প্রেরণা। এই বাংলাকেও আত্মনির্ভর ভারতের ভূমিকায় অংশ নিতে হবে। আত্মনির্ভর ভারতের নেতৃত্ব দিতে হবে আত্মনির্ভর বাংলা আর সোনার বাংলাকে। বাংলা এগিয়ে আসুক। বাংলা নিজের গৌরব আরও বাড়াক। এই সঙ্কল্প সাধিত না হওয়া পর্যন্ত নেতাজির মতোই থামা চলবে না।’’

এই ‘সোনার বাংলা’ শব্দবন্ধ অনেক দিন থেকেই এ রাজ্যের মানুষ শুনে আসছেন বিজেপি নেতাদের বক্তৃতায়। অমিত শাহ থেকে কৈলাস বিজয়বর্গীয়রা রাজনৈতিক সভায় বার বার ‘বাংলার হারিয়ে যাওয়া গৌরব পুনরুদ্ধার’ করে ‘সোনার বাংলা’ গড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। নেতাজিকে নিয়ে বক্তৃতার শেষে সেই সুরই যেন টেনে আনলেন মোদী।

Advertisement

শনিবারের বক্তৃতার শুরুতেই ‘পূণ্যভূমি বাংলাকে প্রণাম’ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বক্তৃতা জুড়ে বাংলার মানুষের আবেগকে ছুঁয়ে ফেলার চেষ্টা ছিল। বলেন, ‘বাংলাই শিখিয়েছে দেশপ্রেম’। কখনও নেতাজির কথা উদ্ধৃত করলেন, কখনও বললেন বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় থেকে ঋষি অরবিন্দের নাম। বাংলা ভাষাও মোদীর ভাষণে ফিরে ফিরে এল বেশ কয়েক বার।

তাঁর বলার আগেই অবশ্য তাল কেটেছে অনুষ্ঠানের। দর্শকাসন থেকে ‘জয় শ্রী রাম’ আওয়াজ ওঠার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বক্তৃতা না দিয়ে মঞ্চ থেকে নেমে যান। মোদী অবশ্য তাঁর বক্তব্যের কোথাও সেই বিষয়ে কিছু বলেননি।

মোদীর আসল লক্ষ্য যে বাংলার মানুষের আবেগের সঙ্গে নিজের চিন্তাকে মিলিয়ে দেওয়া, তা শনিবারও বারবার প্রমাণিত হল তাঁর ভাষণে। তিনি বললেন, ‘বাংলাই শিখিয়েছে দেশপ্রেম’। নেতাজির জন্মজয়ন্তীর মঞ্চ থেকে এককথায় বাংলায় জয়গান গাইলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে আয়োজিত অনুষ্ঠানের ভাষণে শুরুতেই মোদী বলেন, ‘‘নেতাজির মা প্রভাবতী বসুকে আমি প্রণাম করি। যিনি নেতাজিকে জন্ম দিয়েছিলেন। আজ ওই পবিত্র দিনের ১২৫ বছর হচ্ছে। আজকের দিনেই সেই মানুষটির জন্ম হয়েছিল, যিনি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সাম্রাজ্যবাদী শক্তির সামনে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, ‘আমি স্বাধীনতা চেয়ে নেব না, ছিনিয়ে নেব।’

Advertisement