Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

রাজ্যসভা ভোটে নাক গলাবে না সুপ্রিম কোর্ট

বিরোধী নেতারা বলছেন, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের ফলে একদিকে যেমন রাজ্যসভায় কংগ্রেসের একটি আসন কমে বিরোধী শিবিরের শক্তি কমবে, তেমনই বিজেপির

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ২৬ জুন ২০১৯ ০২:৪০
Save
Something isn't right! Please refresh.
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

Popup Close

রাজ্যসভায় অমিত শাহ ও স্মৃতি ইরানির শূন্য আসনে উপনির্বাচন নিয়ে নাক গলাতে রাজি হল না সুপ্রিম কোর্ট। দু’টি আসনে একই সঙ্গে ভোট হলেও ভোটগ্রহণ আলাদা করে হবে বলে ঠিক করেছে নির্বাচন কমিশন। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই শীর্ষ আদালতে গিয়েছিল কংগ্রেস। এ দিনের রায়ের ফলে গুজরাতের ওই দু’টি আসনেই বিজেপির জয় নিশ্চিত হয়ে গেল। এক সঙ্গে ভোটগ্রহণ হলে একটি আসন কংগ্রেস পেত।

বিরোধী নেতারা বলছেন, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের ফলে একদিকে যেমন রাজ্যসভায় কংগ্রেসের একটি আসন কমে বিরোধী শিবিরের শক্তি কমবে, তেমনই বিজেপির একটি বাড়তি আসন নিশ্চিত হল। গুজরাতে তাদের ‘নিশ্চিত’ আসনটি থেকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহকে জিতিয়ে আনার পরিকল্পনা করেছিল কংগ্রেস। এ বার তামিলনাড়ুতে ছ’টি রাজ্যসভা আসনের মধ্যে কোনও একটি থেকে ডিএমকে-র সাহায্যে মনমোহনকে জিতিয়ে আনার চেষ্টা করতে হবে তাদের। তামিলনাড়ুর ছ’টি আসনে নির্বাচনের ঘোষণা হয়েছে আজই। নির্বাচন হবে জুলাইয়ে । এই ছ’টি আসনের মধ্যে তিনটি ডিএমকে জিততে পারবে। কিন্তু ডিএমকে আদৌ কংগ্রেসের জন্য আসন ছাড়বে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

অমিত-স্মৃতি লোকসভা ভোটে জেতার পরে গুজরাতে রাজ্যসভার দু’টি আসন শূন্য হয়। কিন্তু দু’টি ভোটের বিজ্ঞপ্তি জারি হয় আলাদা ভাবে। একসঙ্গে ভোট হলে প্রথম ও দ্বিতীয় পছন্দের ভোটে গুজরাতে একটি আসন বিজেপি ও অন্যটি কংগ্রেস পায়। কিন্তু আলাদা ভোট হলে দু’টিই বিজেপির ঝুলিতে যায়। এর বিরুদ্ধে গুজরাতের কংগ্রেস বিধায়ক পরেশভাই ধানানি মামলায় বিচারপতি সঞ্জীব খন্না ও বিচারপতি বি আর গাভাইয়ের বেঞ্চ নির্বাচন কমিশনের বক্তব্য জানতে চায়। কিন্তু কমিশন সুপ্রিম কোর্টকে নির্বাচনের মধ্যে নাক না গলানোর আর্জি জানায়। কোর্টও আজ জানিয়েছে, একবার নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেলে আদালতের পক্ষে নাক গলানো সম্ভব নয়। ভোটপ্রক্রিয়া শেষ হয়ে গেলে তা নিয়ে পিটিশন দায়ের করা যেতে পারে।

Advertisement

বিজেপি অবশ্য নিশ্চিতই ছিল, কোর্ট নাক গলাবে না। তাই সোমবার রাতেই দিল্লি থেকে নতুন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে আমদাবাদ পাঠিয়ে দেওয়া হয়। জয়শঙ্কর ও গুজরাতের ওবিসি নেতা যুগলজি ঠাকোর আজ মনোনয়ন জমা দেন। কংগ্রেস কোনও প্রার্থী দাঁড় না করানোয় তাঁরা ভোটাভুটি ছাড়াই জিতে যাচ্ছেন। কংগ্রেসের বক্তব্য, ভোটপ্রক্রিয়া শেষ হয়ে গেলে এ নিয়ে মামলা করার কথা ভাবা যাবে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement