Advertisement
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Indepence Day

Flag Hoisting: ধর্মে খ্রিস্টান, তাই স্বাধীনতা দিবসে পতাকা না তুলে বিতর্কে তামিলনাড়ুর প্রধানশিক্ষিকা

তামিলসেলভি জানিয়েছেন, তিনি ইয়াকোবা খ্রিস্টান। তাই তিনি জাতীয় পতাকা উত্তোলন কিংবা পতাকাকে অভিবাদন জানাতে পারেন না।

তামিলনাড়ুর সেই স্কুলশিক্ষিকা তামিলসেলভি।

তামিলনাড়ুর সেই স্কুলশিক্ষিকা তামিলসেলভি।

সংবাদ সংস্থা
চেন্নাই শেষ আপডেট: ১৭ অগস্ট ২০২২ ১৯:৩২
Share: Save:

ধর্মপরিচয়ে খ্রিস্টান, তাই স্বাধীনতা দিবসের দিন পতাকাই তুললেন না সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষিকা! এমনই ঘটল তামিলনাড়ুর ধর্মপুরী জেলার একটি সরকারি বিদ্যালয়ে। শিক্ষিকার নাম তামিলসেলভি। পতাকা না তোলার কারণ ব্যাখ্যা করে তাঁর যুক্তি, তিনি খ্রিস্টান, তাই নাকি তিনি ঈশ্বর বিনা অন্য কাউকে অভিবাদন জানাতে পারেন না। তা সে কোনও ব্যক্তি না হয়ে বিমূর্ত পতাকা হলেও নয়।

তবে এই বছরই প্রথম নয়, বিগত চার বছর ধরেই তিনি স্বাধীনতা দিবসের দিন পতাকা উত্তোলন করেন না। তামিলনাড়ুর ওই স্কুলের সহ প্রধানশিক্ষিকা পতাকা উত্তোলন করে থাকেন। স্বভাবতই, সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষিকার এরকম আচরণের বিরুদ্ধে জেলার মুখ্য শিক্ষা আধিকারিকের কাছে নালিশ ঠুকেছেন কেউ কেউ। অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, অসুস্থতার কথা বলে আগেও স্বাধীনতা দিবসের দিন অনুপস্থিত থেকেছেন এই শিক্ষিকা।

আত্মপক্ষ সমর্থনে অবশ্য একটি ভিডিও-বার্তায় ওই শিক্ষিকা জানিয়েছেন, তিনি ইয়াকোবা খ্রিস্টান, তাই তিনি জাতীয় পতাকা উত্তোলন কিংবা পতাকাকে অভিবাদন জানাতে পারেন না। তাঁর কথায়, “আমরা শুধু ঈশ্বরকেই প্রণাম বা অভিবাদন জানাই।” যদিও তাঁর দাবি, তিনি জাতীয় পতাকাকে অসম্মান করেন না। কিন্তু অভিবাদন জানানোর প্রশ্নে শুধু ঈশ্বরকেই স্থান দেন। সেই জন্যই তিনি তাঁর সহকর্মীকে পতাকা উত্তোলন করতে বলেন বলে জানিয়েছেন তিনি। দেশজুড়ে যখন সরকারি স্তরে ‘হর ঘর তিরঙ্গা’ নিয়ে জোরকদমে প্রচার চালানো হচ্ছে, তখন এমন ঘটনায় অবাক হচ্ছেন সকলে। জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করার দায়ে সেই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কোনও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না, প্রশাসনের তরফে তা এখনও জানা যায়নি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE