Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

যোগ-দিবসে বিয়োগের জল মাপল বিজেপি

দিনভর হাওয়া দেখে বিজেপি নেতারা বুঝতে পারছেন, আগামী দিন বড় সহজ হবে না। বিহারে আসন ভাগাভাগি নিয়ে নীতীশের সঙ্গে বিবাদ বাধতে বাধ্য। লোকসভায় বিজেপি যত আসন চাইছে, নীতীশ তা দিতে নারাজ।

যোগ-প্রদর্শন: চতুর্থ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়া। বেঙ্গালুরুতে। পিটিআই

যোগ-প্রদর্শন: চতুর্থ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়া। বেঙ্গালুরুতে। পিটিআই

দিগন্ত বন্দ্যোপাধ্যায় ও দিবাকর রায়
নয়াদিল্লি ও পটনা শেষ আপডেট: ২২ জুন ২০১৮ ০৩:৩৭
Share: Save:

নরেন্দ্র মোদীর ডাকে সাড়া দিলেন কারা?

Advertisement

যোগ কি যোগসূত্র বাড়াল না কেটে দিল? সকাল থেকে হাওয়া মেপে গেলেন বিজেপি নেতারা। মোদীর উদ্যোগেই রাষ্ট্রপুঞ্জ আজকের দিনটি ‘আন্তর্জাতিক যোগ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ বছর যোগ দিবসে মোদী দেহরাদূনে যোগ-প্রদর্শনী সেরেই দিল্লি ফিরে চল্লিশটির বেশি টুইট করে ফেলেছেন। দেশি-বিদেশি ভাষায় দেশ-বিদেশের যোগাভ্যাসের ছবি দিয়ে।

তাঁর মন্ত্রীদের দায় ছিল যোগাসন করে দেখানোর। কেন্দ্রের ৬০ জন মন্ত্রী আজ কে কোথায় যোগপ্রদর্শন করবেন, গত কালই তার তালিকা প্রকাশ করেছে বিজেপি। সে কারণে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ ধুতি ছেড়ে প্যান্ট-টি-শার্ট পরে নেমেছিলেন লখনউয়ে। একই মঞ্চে গেরুয়া টি-শার্ট পরে ওঠেন যোগী আদিত্যনাথও। যোগী বলেন, রাজনাথকে নতুন পোশাকে চিনতেই পারেননি তিনি।

মন্ত্রীদের রিপোর্ট কার্ড তো ঠিকঠাক। কিন্তু শরিকরা? অন্যতম শরিক নেতা নীতীশ কুমার তো নেই! তিনি নিজে যোগাসন করেন, তা হলে এই অনুষ্ঠানে নেই কেন? অস্বস্তি আড়াল করতে আসরে নেমে উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদী বললেন, ‘‘নীতীশ বাড়িতে যোগাসন করেন। সকলকে বাইরে এসে যোগ করতে হবে, তার মানে নেই।’’ বিজেপির অবশ্য স্বস্তি এল রামবিলাস পাসোয়ানকে দেখে। ‘হাওয়া-মোরগ’ তিনি। ভোটের আগেই বুঝিয়ে দেন, কোন দিকে ঝুঁকবেন। আজ মোদীর ডাকে সাড়া দিয়ে যোগাপ্রদর্শনে বসেছেন হাজিপুরে। সঙ্গে আর এক শরিক উপেন্দ্র কুশওয়াহা।

Advertisement

এ তো গেল শরিক-কথা। বাকিরা? পশ্চিমবঙ্গে যেমন সরকারি অনুষ্ঠান নেই। আগের মতোই দূরত্ব বজায় রাখলেন মমতা। আবার সদ্য জোট ছেড়ে যাওয়া চন্দ্রবাবু নায়ডু নিজের রাজ্যে যোগাসনের আয়োজন তো করলেনই, নিজেও যোগ করলেন। পঁচাশি বছরের দেবগৌড়া নিজের ঘরে গোটা সংবাদমাধ্যমকে হাজির করিয়ে একের পর আসন করে দেখালেন। প্রবীণ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী যেন মোদীকে বুঝিয়ে দিলেন, ‘আমরাও পারি।’

দিনভর হাওয়া দেখে বিজেপি নেতারা বুঝতে পারছেন, আগামী দিন বড় সহজ হবে না। বিহারে আসন ভাগাভাগি নিয়ে নীতীশের সঙ্গে বিবাদ বাধতে বাধ্য। লোকসভায় বিজেপি যত আসন চাইছে, নীতীশ তা দিতে নারাজ। কংগ্রেসের আশা, ভোটের আগেই বিজেপি-সঙ্গ ছাড়বেন নীতীশ। আজ যোগ আসরে না গিয়ে তারই ইঙ্গিত দিলেন। কংগ্রেসের প্রমোদ তিওয়ারি বললেন, ‘‘বিজেপি চাইছিল কংগ্রেস-মুক্ত দেশ। ধীরে ধীরে শরিক যোগ ছিন্ন হয়ে নিজেরাই মুক্ত হচ্ছে!’’

এরই মধ্যে ক্যামেরার সামনে শরিক ওম প্রকাশ রাজভরের দলের বিধায়ককে ‘চোর’ বলে বিপত্তি বাধিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সভাপতি মহেন্দ্র নাথ পাণ্ডে। ক্ষুব্ধ রাজভর দেখা করেছেন সপা-র শিবপাল যাদবের সঙ্গে। বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে মামলারও হুমকি দিয়েছেন। দিল্লিতে অখিলেশ যাদব বলে গিয়েছেন, বিজেপিকে হারাতে যা যা করার সব হবে। কথা হয়েছে রাহুল গাঁধীর সঙ্গেও।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.