Advertisement
২৯ নভেম্বর ২০২২
Uddhav Thackarey

Uddhav Thackeray: কমিশনকে ঠেকাতে উদ্ধবেরা সুপ্রিম কোর্টে

কমিশনই ঠিক করে দেবে কোন গোষ্ঠী প্রকৃত শিবসেনা— উদ্ধবের অনুগত অংশ না শিন্ডের অনুগামীরা।

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

মুম্বই শেষ আপডেট: ২৬ জুলাই ২০২২ ০৭:৪১
Share: Save:

কে প্রকৃত শিবসেনা, তা বাছাইয়ের দায়িত্ব যাতে নির্বাচন কমিশনের হাতে না যায়, সে জন্য সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করল উদ্ধব ঠাকরের ‘আদি’ গোষ্ঠী। শিবসেনার প্রতিষ্ঠাতা বালসাহেব ঠাকরের পুত্র মহারাষ্ট্রের সদ্য প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে খাতায় কলমে দলের নেতা হলেও বিদ্রোহ করে বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে মুখ্যমন্ত্রী হয়ে বসা একনাথ শিন্ডে নিজেকে ‘স্বাভাবিক নেতা’ বলে দাবি করে ঘোষণা করেছেন— তাঁর অনুগত বিদ্রোহী অংশই এখন প্রকৃত শিবসেনা। বিধায়ক ও সাংসদদের অধিকাংশের সমর্থনও রয়েছে তাঁর দিকে।

Advertisement

শিন্ডে তাঁর স্বীকৃতির জন্য নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হলে কমিশন দুই অংশকেই বলে নিজ নিজ দাবির সমর্থনে ৮ অগস্টের মধ্যে নথিপত্র জমা দিতে। তা দেখে কমিশনই ঠিক করে দেবে কোন গোষ্ঠী প্রকৃত শিবসেনা— উদ্ধবের অনুগত অংশ না শিন্ডের অনুগামীরা। কিন্তু এই চিঠি পেয়েই সর্বোচ্চ আদালতে গিয়েছেন উদ্ধবের অনুগামীরা। তাঁদের যুক্তি, দলের একাংশ বিধায়ককে প্রথমে গুজরাত ও পরে অসমে তুলে নিয়ে গিয়ে দলবিরোধী কাজ করেছেন শিন্ডে। শিন্ডে নিজেকে নেতা ঘোষণার আগেই বেশ কিছু বিধায়ককে শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য বহিষ্কার করেছেন দলীয় নেতৃত্ব। সেই শাস্তিকে হিসাবের মধ্যে আনলে শিন্ডে আর নিজেকে সংখ্যাগরিষ্ঠ বিধায়কের নেতা বলতে পারেন না। এই পরিস্থিতিতে বর্তমান বিধায়ক ও সাংসদের সংখ্যার ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন কোনও গোষ্ঠীকে ‘আসল শিবসেনা’ বলে ঘোষণা করলে তা যুক্তিযুক্ত হবে না। উদ্ধবের অনুগামী অংশের নেতা, দলের সাধারণ সম্পাদক সুভাষ দেশাই সুপ্রিম কোর্টে এই আবেদন করে জানিয়েছেন, বিষয়টি আপাতত বিচারাধীন হওয়ায় কেউই নিজেকে আসল শিবসেনা বলে দাবি করতে পারবে না। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে,পরিস্থিতির উপরে তারা নজর রাখছে।

আবার শিন্ডে শিবির স্পিকারকে বলেছে, উদ্ধবের অনুগামী বিধায়কদের বহিষ্কার করে দিতে। ১১ জুলাই শুনানির পরে সুপ্রিম কোর্ট স্পিকারকে নির্দেশ দিয়েছে, আপাতত উদ্ধব শিবিরের বিধায়কদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা যেন তিনি না নেন। শিন্ডে শিবিরের দাবি, আজ না হোক কাল উদ্ধব অনুগত বিধায়কদের বহিষ্কার হতেই হবে। কারণ আস্থাভোটের সময়ে দলের হুইপ অমান্য করেছেন তাঁরা। সংবাদ সংস্থা

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.