Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ছেলের মুখ্যমন্ত্রিত্বের দাবি ছাড়লেন উদ্ধব

বিজেপির শীর্ষ সূত্রের মতে, দুই দলের নেতৃত্বের মনে দু’টি বিষয়ে কোনও সংশয় নেই। এক, মহারাষ্ট্রে বিধানসভার নির্বাচনে ফের ক্ষমতায় আসছে বিজেপি-শিব

দিগন্ত বন্দ্যোপাধ্যায়
নয়াদিল্লি ১১ অক্টোবর ২০১৯ ০৩:০৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
উদ্ধব ঠাকরে। ফাইল চিত্র।

উদ্ধব ঠাকরে। ফাইল চিত্র।

Popup Close

মহারাষ্ট্রে বিজেপি-শিবসেনা ক্ষমতায় এলে মুখ্যমন্ত্রী হবেন না উদ্ধব ঠাকরের পুত্র আদিত্য। শিবসেনা নেতারা প্রকাশ্যে যা-ই দাবি করুন, বিজেপির চাপে এই বিষয়টি মেনেও নিয়েছেন উদ্ধব।

বিজেপির শীর্ষ সূত্রের মতে, দুই দলের নেতৃত্বের মনে দু’টি বিষয়ে কোনও সংশয় নেই। এক, মহারাষ্ট্রে বিধানসভার নির্বাচনে ফের ক্ষমতায় আসছে বিজেপি-শিবসেনা। দুই, ক্ষমতায় আসার পর ফের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন দেবেন্দ্র ফডণবীস। এই প্রথম ঠাকরে পরিবার থেকে কেউ ভোটে লড়ছেন। শিবসেনা নেতারা প্রকাশ্যে দাবিও করছেন, আদিত্যই মুখ্যমন্ত্রী হবেন। কিন্তু দুই দলের নেতৃত্বের মধ্যে এই নিয়ে রফা হয়ে গিয়েছে। আজও মহারাষ্ট্রে প্রচারে গিয়ে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বলেছেন, ‘‘দেবেন্দ্র ফডণবীসের নেতৃত্বেই লড়ছে
বিজেপি-শিবসেনা।’’

রাজ্যের ২৮৮টি আসনের মধ্যে শিবসেনা অর্ধেক আসনে লড়ার জন্য জেদ ধরে ছিল। কিন্তু অমিত শাহদের চাপে শেষ পর্যন্ত ১২৪টি আসনেই লড়তে সম্মত হতে হয় তাদের। বিজেপি নিজে লড়ছে দেড়শো আসনে। বাকিগুলি ছোট দলকে দেওয়া হয়েছে। বিজেপির চাপের কাছে যে মাথা নোয়াতে হয়েছে, সে কথা সম্প্রতি উদ্ধব প্রকাশ্যেই কবুল করেছেন। তিনি বলেছেন, ক্ষমতায় থাকার জন্য আপস করতে হয়েছে তাঁদের। তবু শিবসেনা যাতে সব চেয়ে বেশি আসন পেতে পারে, তারই চেষ্টা করতে হবে শিবসৈনিকদের।

Advertisement

শিবসেনার এক সূত্রের মতে, আদিত্য ঠাকরে সবে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু করছেন। ফলে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসার জন্য সময় আছে। উদ্ধব ঠাকরেরা এখনও বলে চলেছেন, শিবসৈনিকই মুখ্যমন্ত্রী হবেন। কিন্তু কবে হবেন, তার কোনও সময় বেধে দিচ্ছেন না। শিবসেনা শিবির মানছে, তিনশোর বেশি আসন নিয়ে লোকসভায় দ্বিতীয়বার জিতে আসার পর এখন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহদেরই দাপট বেশি। শরদ পওয়ারের মতো প্রভাবশালী পোড় খাওয়া নেতাকেও চাপে রাখছে বিজেপি। ফলে ঘুরপথে সে চাপ আসে উদ্ধবের উপরেও। বালাসাহেবের মতো দাপট তাঁর নেই।

যদিও পওয়ারকে নতুন করে বার্তা দিয়েছেন কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা সুশীল কুমার শিন্দে। লোকসভা ভোটের পর থেকেই কংগ্রেসের সঙ্গে পওয়ারের এনসিপি-র মিশে যাওয়া নিয়ে জল্পনা চলছে। রাহুল গাঁধীর সঙ্গে পওয়ারের বৈঠকের পরে সেই জল্পনা মাথাচাড়া দেয়। শিন্দে বলেন, ‘‘এনসিপি-র জন্ম কংগ্রেস থেকে। ফলে তাদের আবার ঘরে ফিরে আসা উচিত।’’ যদিও সে প্রস্তাব খারিজ করে পওয়ার বলেছেন, ‘‘দুই দল মিলে এমনিতেই ভোটে লড়ছে। শিন্দে নিজের দল নিয়ে কথা বলুন, এনসিপিকে নিয়ে নয়।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement