×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২২ জুন ২০২১ ই-পেপার

পেট্রোল ভরার সময়ে পুলিশের গাড়ি থেকে উধাও আসামী ফের জালে

সংবাদ সংস্থা
লখনউ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৬:১২
গ্রাফিক- তিয়াসা দাস।

গ্রাফিক- তিয়াসা দাস।

নাবালিকা ধর্ষণে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তাকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল থানায়। যাওয়ার পথে তেল ভরার জন্য পেট্রোল পাম্পে গাড়ি থামিয়েছিলেন পুলিশকর্মীরা। সেই সুযোগেই পুলিশের জিম্মা থেকে পালিয়ে যায় ওই আসামী। পরে অবশ্য তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরি জেলায়।

পেট্রল পাম্পের সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে আসামীর পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা। সেই ভিডিয়ো এখন ভাইরাল। ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, সাদা জামা ও মেরুন প্যান্ট পরা ওই আসামী পালাচ্ছেন। তাকে ধরার জন্য ছুটছেন দুই পুলিশকর্মী।

জানা গিয়েছে, নাবালিকা ধর্ষণে অভিযুক্তের নাম হীরালাল। লখীমপুর খেরির মিতুয়ালিতে এক নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে সে। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ ধারা ও পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Advertisement

এই ঘটনার পর মুখ পুড়েছে সেখানকার পুলিশেরও। হীরালালকে গ্রেফতার করতে ময়দানে নেমেছিল তিনটি থানার পুলিশ। অবশেষে সোমবার ধরা পড়ে সে। ঘটনা নিয়ে সেখানকার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অরুণকুমার সিংহ বলেছেন, ‘‘পুলিশকর্মীদের গাফিলতির তদন্ত শুরু হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’ রবিবার পেট্রল পাম্পে হীরালালের সঙ্গে থাকা দু’জন পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই অফিসার।


গত এক মাসে নাবালিকা ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় একাধিক বার খবরের শিরোনামে এসেছে উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরি জেলা। মাত্র ২০ দিনের ব্যবধানে ধর্ষিতা হয়ে খুন হয়েছিল তিন নাবালিকা। প্রথম ঘটনায়, ১৩ বছরের এক নাবালিকার দেহ উদ্ধার হয় আখের খেত থেকে। দ্বিতীয় ঘটনায়, স্কলারশিপের ফর্ম তুলতে যাওয়ার পর বাড়ি ফেরা হয়নি ১৭ বছরের এক কিশোরীর। গ্রামের বাইরে একটি পুকুরে তার ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার হয়েছিল। তৃতীয় ঘটনায় তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়। সেই ঘটনাগুলির জেরে বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছিল যোগী রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন।

আরও পড়ুন: থানা থেকে অপহরণ করে নাবালিকাকে ধর্ষণ! কাঠগড়ায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ

আরও পড়ুন: মেয়েকে বিক্রির গুজব, ফের গণপিটুনিতে মৃত্যু উত্তরপ্রদেশে

Advertisement