Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ট্রেনের টিকিট বিক্রির ‘তৎকাল’ অ্যাপ বানিয়ে জালিয়াতি, গ্রেফতার আইআইটি খড়্গপুরের প্রাক্তনী

আইআরসিটিসি-র যে অ্যাপ রয়েছে সেটি খুব স্লো। টিকিট কাটতে বেশি সময় লাগছে। তাই তিনি নিজেই দু’টি অ্যাপ বানিয়ে ফেলেন, ‘সুপার তৎকাল’ এবং ‘সুপার তৎক

সংবাদ সংস্থা
চেন্নাই ২৯ অক্টোবর ২০২০ ১৪:২৯
প্রতীকী চিত্র।

প্রতীকী চিত্র।

আইআরসিটিসি-র অ্যাপ খুব ধীরে চলে। তাই সেই ব্যবস্থাকে বাইপাস করে নিজের মতো করে একটি অ্যাপ বানিয়ে রেলের টিকিট বিক্রির ব্যবস্থা করে ফেলেন আইআইটি খড়গপুরের এক প্রাক্তনী। এমন উদ্ভাবনী ক্ষমতা দেখালেও আপাতত তিনি শ্রীঘরে। তামিলনাড়ুর ওই বাসিন্দাকে গ্রেফতার করেছে আরপিএফ।

এস যুবরাজা নামের এই যুবক তামিলনাড়ুর তিরুপুরের বাসিন্দা। তিনি লক্ষ্য করেন রেলের টিকিট কাটার জন্য আইআরসিটিসি-র যে অ্যাপ রয়েছে সেটি খুব স্লো। টিকিট কাটতে বেশি সময় লাগছে। তাই তিনি নিজেই দু’টি অ্যাপ বানিয়ে ফেলেন, ‘সুপার তৎকাল’ এবং ‘সুপার তৎকাল প্রো’। আইআরসিটিসি-র অ্যাপের তুলনায় এগুলিতে দ্রুত টিকিট কাটা সম্ভব হচ্ছিল। ফলে অ্যাপগুলি দ্রুত জনপ্রিয়তা পেয়ে যায়। অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ স্টোরে এক লাখের মতো ইউজার পেয়ে গিয়েছিল অ্যাপ দু’টি।

বিষয়টি নজরে আসে আইআরসিটিসি-র। তদন্তে নেমে অ্যাপ দু’টির সার্ভার সোর্স কোড, অ্যাপ্লিকেশন সোর্স কোড, এন্ড-ইউজার লিস্ট এবং ব্যাঙ্ক স্টেটমেন্টের সূত্রে ধরে অভিযুক্ত এস যুবরাজাকে খুঁজে বের করে ফেলেন তদন্তকারীরা। তদন্তকারীরা দেখেন, এই অ্যাপ থেকে যুবরাজার আয় হত কয়েন সিস্টেমে। ২০ টাকা দিয়ে ১০টি করে কয়েন কেনা যেত। আর একবার টিকিট কাটার জন্য পঁচটি করে কয়েন খরচ হত। আর কয়েন থেকে আয় হওয়া সেই টাকা যুবরাজার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা হত।

Advertisement

আরও পড়ুন: গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে গিয়ে কোটিপতি হয়ে গেলেন মহিলা

আরও পড়ুন: থানায় পুলিশের হাত থেকে পালককে ‘ছাড়িয়ে’ নিয়ে গেল পোষ্য

জানা গিয়েছে, যুবরাজা আন্না ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করে আইআইটি খড়গপুরের স্নাতকোত্তর স্তরে ভর্তি হন। ২০১৬ থেকেই নাকি যুবরাজা অ্যাপ বানাচ্ছেন। গ্রেফতারের পর তার বিরুদ্ধে রেলের আইনে ১৪৩ (২) ধারায় মামলা রুজু হয়েছে।

আরও পড়ুন

Advertisement