• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মনোনয়ন না পেয়ে ঢাকার গুলশনে খালেদার অফিসে হামলা, ভাঙচুর

bangladesh
তখনও ঝামেলা চলছে।—নিজস্ব চিত্র।

তিনজনই আশা করেছিলেন, মনোনয়ন জুটবে। কিন্তু শেষ দিনে তাঁরা নিশ্চিত হলেন, কপালে শিকে এ দফায় ছিঁড়ল না!

সমর্থকদের মাথা গরম।প্রথমে তাঁরা ছুটলেন ঢাকার পল্টনে। সেখানে ক্ষোভ জানানোর পর দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিলেন। তার পরেই তাঁরা ছুটলেন গুলশনে। মনোনয়ন না পেয়ে ঢাকার গুলশনে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অফিসে হামলা ও ভাঙচুর করলেন দলের তিন নেতার সমর্থকেরা। ইটের আঘাতে অফিসের জানালার কাচ ভেঙেছে। সাবেক বিএনপি জামায়াত সরকারের প্রতিমন্ত্রী এহছানুল হক মিলন, নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতা তৈমুর আলম খন্দকার ও গোপালগঞ্জের সেলিমুজ্জামান সেলিমের বেশ কয়েক হাজার হাজার সমর্থক শনিবার বিকেলে ঘটিয়েছে এই ঘটনা।

শনিবার বিকেল ৫টার পর দলীয় কার্যালয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির সময়ে তাঁরা ইট-পাটকেল ছুড়েছে।ওই ঘটনার সময়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,দলের ফোরাম সদস্য খোন্দকার মোশাররফ হোসেন ও নজরুল ইসলাম খান-সহ বেশ কয়েক জন নেতা গুলশনের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ ছিলেন।বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ওই অফিসে আটকে পড়া এক সাংবাদিক জানান, মনোনয়ন না পাওয়া তিন নেতার সমর্থকেরা ক্ষুব্ধ হয়ে অফিসের দিকে ইটপাটকেল ছুড়েছে।তাঁরা ভবনের প্রধান দরজা ভেঙে ফেলার চেষ্টাও করে।

আরও পড়ুন: অ্যাডিলেডে কোহালিকে টিটকিরি! সমালোচনায় রিকি পন্টিং, ট্র্যাভিস হেড​

আরও পড়ুন: দিনদুপুরে ভরা রাস্তায় চপার দিয়ে খুনবন্দর এলাকায়​

চাঁদপুর-১ আসনে সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মিলনকে না দিয়ে এবার বিএনপি মনোনয়ন দিয়েছে মোশাররফ হোসেনকে। এর প্রতিবাদে হামলা-ভাঙচুরের আগে এ দিন দুপুরে ঢাকার পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ দেখান বিএনপি নেতা এহছানুল হক মিলনের কর্মী-সমর্থকরা। তাঁরাসেখানেবিএনপিরযুগ্মমহাসচিবরুহুলকবিররিজভীরসঙ্গেদেখাকরেওতাঁদেরক্ষোভেরকথাবলেন।অন্য দিকে,নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতা তৈমুর আলম খন্দকার এর আগে নারায়নগঞ্জের মেয়র প্রার্থী ছিলেন। সেবার ভোটের মাত্র কয়েকঘণ্টা আগে খালেদা জিয়া নির্দেশ দিয়ে তৈমুরকে ভোট থেকে সরে যেতে বাধ্য করেছিলেন। সে সময়ে তৈমুর সংবাদ মাধ্যমের সামনে অভিযোগ করেছিলেন, তাঁকে কোরবানি দিয়ে দেওয়া হল। এবার তিনি ভেবেছিলেন সেই ঘটনা মনে রেখে দল তাকে মনোনয়ন দেবে।কিন্ত তা না হওয়ায় তাঁর সমর্থকেরা এই হামলা চালায়।

প্রাক্তন ছাত্রনেতা ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিমেরও আশা ছিল, বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক ধানের শিষ পাওয়ার।আশা পূর্ণ না হওয়ায় তাঁর সমর্থকেরাও হামলায় অংশ নেয়। বিএনপির পল্টন অফিসের তালা পরে খুলে ফেলা হয়। তবে গুলশনে খালেদার অফিসের সামনে তিন বিক্ষুব্ধ নেতার সমর্থকেরা এখনও অবস্থান বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন।

 

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন