Advertisement
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
Teeth

Wisdom Tooth: আনারস খেলে নাকি কমবে আক্কেল দাঁতের ব্যথা! টিকটক তারকার দাবিতে হইচই

আক্কেল দাঁত নিয়ে সমস্যায় থাকা অনেকেই আনারসের দাওয়াই প্রয়োগ করেছেন নিজেদের উপর। জানিয়েছেন, দিব্যি কাজ করছে এই পদ্ধতি।

আক্কেল দাঁতের ব্যথা কমবে কী ভাবে?

আক্কেল দাঁতের ব্যথা কমবে কী ভাবে? ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ অগস্ট ২০২১ ১২:০৬
Share: Save:

ঢকঢক করে আনারসের রস খেলেই কমে যাচ্ছে আক্কেল দাঁতের ব্যথা! এক টিকটক তারতার এ রকম দাবিতে হইচই পড়ে গিয়েছে নেটমাধ্যমে। কী বলছেন চিকিৎসকরা?

হালে ‘রিওয়াইন্ড শর্টস’ নামে এক টিকটক তারকা এমনই দাবি করেছেন নেটমাধ্যমে। তাঁর দাবি, আক্কেল দাঁত উঠছিল। ব্যথার চোটে থাকতে পারছিলেন না। চিকিৎসক বলেছিলেন, অস্ত্রপচার করতে হবে। সেই অস্ত্রপচারের কয়েক দিন আগে থেকে আনারসের রস খেতে শুরু করেন তিনি। তাতেই বাজিমাত। অস্ত্রপচার করার এক-দু’দিনের মধ্যেই হাওয়া দাঁতের ব্যথা! হাওয়া ফোলা ভাবও।

টিকটক তারকার এই দাবি এতই শোরগোল ফেলেছে, চার-পাঁচ দিনের মধ্যেই তা দেখে ফেলেছেন প্রায় ৩৯ লক্ষ মানুষ! শুধু তাই নয়, আক্কেল দাঁত নিয়ে সমস্যায় থাকা অনেকেই আনারসের দাওয়াই প্রয়োগ করেছেন নিজেদের উপর। ভ্যালেরিয়া নামের আরও এক টিকটক ব্যবহারকারীও একই পদ্ধতিতে আক্কেল দাঁতের ব্যথা কমানোর চেষ্টা করেছেন। এবং জানিয়েছেন, দিব্যি কাজ করছে এই পদ্ধতি। রোজ এক লিটারের বেশি আনারসের রস নাকি তিনি পান করেছেন।

কিন্তু এই দাবি আদৌ কি সত্যি?

সাধারণত অনেকেরই ১৭ বছর থেকে ২১ বছরের মধ্যে আক্কেল দাঁত গজায়। সেই দাঁত গজানোর ঠিকঠাক জায়গা না পেলে শুরু হয় ব্যথা। তখনই দরকার হয় অস্ত্রপচার। কিন্তু ব্যথা কমাতে কী ভাবে কাজে লাগতে পারে আনারস? তারও উত্তর দিচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। তাঁদের বক্তব্য, আনারসে ব্রোমেলিন নামক উপাদান থাকে। সেই যৌগটি অনেকের ব্যথা এবং ফোলা ভাব কমায়। ২০১৮ সালের একটি গবেষণা তেমনই বলছে।

আনারসের রস কি সত্যিই কমাতে পারে আক্কেল দাঁতের ব্যথা?

আনারসের রস কি সত্যিই কমাতে পারে আক্কেল দাঁতের ব্যথা?

কিন্তু আক্কেল দাঁতের ব্যথা কমাতে সবাই কি খেতে পারেন এই রস?

বিজ্ঞানীদের দাবি, সকলের ক্ষেত্রে ব্রোমেলিন এক ভাবে কাজ করে না। কারও ক্ষেত্রে সমস্যা কমায়। কারও কোনও কাজই হয় না। ফলে ১০০ শতাংশ নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়, কার আক্কেল দাঁতের ব্যথা আনারসের রসে কমবে। তবে এমনিতে চিনি ছাড়া এই রস খেলে ক্ষতি নেই। তাই যে কেউ খেয়ে দেখতে পারেন। কমে যেতেও পারে ব্যথা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.