Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

লাইফস্টাইল

অনিদ্রায় ভুগছেন? ওষুধ ছাড়াই সেরে উঠুন এই উপায়ে

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৫ জুলাই ২০১৮ ১৪:২৮
সারা দিন পরিশ্রমের পরেও রাতে ঘুম না আসার সমস্যা নতুন নয়। এ পাশ ও পাশ করতে করতেই রাত কাবার হয় অনেকের। এমন সমস্যা কি আপনারও? ঘুমের ওষুধের শরণ নিতে হচ্ছে প্রায়ই? কিন্তু জানেন কি, ঘুমতে যাওয়ার আগে যদি মানেন সহজ কিছু নিয়ম, তাতেই ঘুম হবে গাঢ়। শরীর থাকবে ঝরঝরে। দেখে নিন কী কী উপায় মানলে আপনিও পাবেন নির্ঝঞ্ঝাটের ঘুম। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।

পা ভিজে রেখে ঘুমতে যাবেন না। চিকিৎসকদের মতে, শরীরের তাপমাত্রার একাংশ নিয়ন্ত্রণ করে পা। তাই পা ভিজে রাখলে শরীরের তাপে ভারসাম্য থাকে না। কাজেই ভাল করে পা মুছে, শুকনো পায়ে উঠুন বিছানায়। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।
Advertisement
প্রতি দিন ঘুমতে যাওয়ার নির্দিষ্ট সময় রাখুন। ঘুমের জন্য হাতে বেশি সময় থাক বা না থাক, ঘুমতে যাওয়ার সময়টা যেন নির্দিষ্ট থাকে। ঘন ঘন সময় বদলালে আমাদের বায়োলজিক্যাল ক্লক সে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে না। ফলে ব্যাঘাত ঘটে ঘুমের। এ ছাড়া সুস্থ থাকতে দৈনিক সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুমের জন্য বরাদ্দ রাখুন। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।

ফোন থেকে দূরে থাকুন। ঘুমের সবচেয়ে ব্যাঘাত ঘটায় বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম। তাই ঘুমতে যাওয়ার আগে পর্যন্ত গ্রুপ চ্যাট, হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক ঘাঁটা থেকে বিরত থাকুন। সময়ে ঘুম না আসার নানা কারণের মধ্যে এর প্রভাবই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বলে মত চিকিৎসকদের। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।
Advertisement
অনেকেরই অভ্যাস থাকে ঘুমনোর সময় বই পড়ার। কিন্তু চিকিৎসা বিজ্ঞান বলছে, এড়িয়ে চলা উচিত সেটাও। ঘুমের আগে দীর্ঘ ক্ষণ বইয়ে মুখ গুঁজে থাকলে চাপ পড়ে চোখে। মস্তিষ্কও সচল থাকে একটু বেশিই। কাজেই ঘুম আসতে দেরি হয়। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।

ঘুমতে যাওয়ার দু’ঘণ্টা আগে সারুন রাতের খাওয়া। চার ঘণ্টা আগেই নিয়ে নিন সে দিনের শেষ কফি বা চা। এই দুই নিয়মে অভ্যস্ত হতে পারলে ঘুম আসবে সহজেই। কফি বা চা আমাদের শরীরের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেমকে উত্তেজিত করে। এ ছাড়া রাতে শরীরের পরিপাক পদ্ধতি ধীর গতিতে চলে। তাই ঘুমনোর মুখে এড়িয়ে চলুন এ সব। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।

তোষক ও বিছানাও কিন্তু ঘুমে ব্যাঘাত ঘটানোর অন্যতম কারণ। খেয়াল রাখুন, সে সবের গুণগত মান যেন উন্নত হয়। ভাল কোম্পানির আরামদায়ক তোষকে শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভাল ভাবে হয়। স্নায়ু ও পেশীরা আরাম পায়। ঘুম আসে নিমেষে। ছবি: পিক্সঅ্যাবে।

তোষক ও বিছানাও কিন্তু ঘুমে ব্যাঘাত ঘটানোর অন্যতম কারণ। খেয়াল রাখুন, সে সবের গুণগত মান যেন উন্নত হয়। ভাল কোম্পানির আরামদায়ক তোষকে শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভাল ভাবে হয়। স্নায়ু ও পেশীরা আরাম পায়। ঘুম আসে নিমেষে। ছবি: শাটারস্টক।

Tags: অনিদ্রা