• সুমা বম্দ্যোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ইলেকট্রিক বিল নিয়ন্ত্রণে রাখতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্রের যত্ন নেবেন কী করে?

ac
যন্ত্রের যত্ন নিন নিজের হাতেই। ফাইল চিত্র।

করোনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে গরমও। বর্ষা এলেও ভ্যাপসা গরম মাঝেমধ্যেই অতিষ্ঠ করছে। এই অবস্থায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের যন্ত্রের প্রয়োজনীয়তা বাড়ে। এ দিকে লকডাউন শিথিল হলেও ইলেক্ট্রিশিয়ান বা এসি মেকানিককে খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তাই মেশিনের যত্ন নেওয়ার পাঠ নিজের জানা থাকলে তা খরচ বাঁচাবে আবার অসুবিধার মধ্যেও থাকতে হবে না। তবে নিতান্ত দরকার পড়লে মেকানিকের জন্যে অপেক্ষা করা ছাড়া গতি নেই। তবু মূল কিছু বিষয় শিখে রাখলে আখেরে নিজেরই লাভ।

যে কোনও বৈদ্যুতিন যন্ত্র ভাল রাখার প্রথম শর্ত পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা। বেশির ভাগ বাড়িতে শীতের সময় এসি মেশিন ব্যবহার হয় না। ব্যবহারের আগে ধুলো-ময়লা পরিষ্কার করে না নিলে একদিকে মেশিন ঠান্ডা হতে সময় বেশি লাগে। অন্য দিকে বাড়তি ইলেকট্রিসিটি খরচ হয় বলে বিলের বোঝা বাড়ে। রোজকার ব্যবহারের জন্য অন্যান্য মেশিনের মতোই এয়ার কন্ডিশনারেরও কিছু ওয়্যার অ্যান্ড টিয়ার হয়। আর এ সব ফেলে রেখে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মেশিন চালাতে থাকলে আচমকা হঠাৎ কাজ করা বন্ধ করে দেয়।

বাড়িতে সাধারণত দু'ধরনের এয়ার কন্ডিশনার মেশিন ব্যবহার করা হয়। স্প্লিট এবং উইন্ডো এসি। ইদানীং বড় হলঘরের জন্যে অনেকেই টাওয়ার এসিও ব্যবহার করছেন। স্প্লিট এসি ঘরের সিলিংয়ের কাছাকাছি লাগানো হয় বলে পরিষ্কার করতে অসুবিধা হয়। ভাঁজ করা সিঁড়ি বা ঘড়াঞ্চি থাকলে মেশিন পরিষ্কার করতে অসুবিধে হবে না। জেনে নিন কী ভাবে এসি পরিষ্কার করবেন।

আরও পড়ুন: কলকাতায় করোনার নয়া উপসর্গের সন্ধান: চর্মরোগ, ডায়ারিয়াতেও সতর্ক হোন​

• এসি মেশিনের বাইরে ও ভিতরে ধুলো-ময়লা জমলে ঠান্ডা সহজে ঠান্ডা হয় না। তাই আসবাব ঝাড়পোঁছ করার মতোই নিয়ম করে মেশিনের চারপাশ শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে পরিষ্কার রাখুন।

• এসির সুইচ ঠিক মতো কাজ করছে কি না চেক করে নেবেন।

• অনেকেই গরমের দিনে ১৬ ডিগ্রিতে এসি চালান। ২৪-২৫ ডিগ্রিতে চালিয়ে রাখলে মেশিনে বাড়তি চাপ পড়ে না। শুরুতে কিছু ক্ষণ কম তাপমাত্রায় চালিয়ে নিয়ে তার পর বাড়িয়ে দিন।

• ঘরের জানলা দরজা ভাল করে বন্ধ না রাখলে মেশিনের উপর বাড়তি চাপ পড়ে ঘর ঠান্ডা হতে দেরি হয়।

• এসি মেশিনের এয়ার ফিলটার নিয়মিত পরিষ্কার রাখা দরকার। মেশিনের ঢাকা খুলে নিয়ে ফিলটার বার করে নিন। শুকনো ধুলো ঝেড়ে নিয়ে ঈষদুষ্ণ সাবান জলে ডুবিয়ে ভাল করে ধুয়ে জল ঝেড়ে শুকনো করে নিয়ে ফিলটার লাগান। ময়লা জমলে মেশিন ঠিকমতো ঠান্ডা হয় না।

• ফিল্টার লাগানোর সময় সুইচ অন করে দেখে নিতে হবে বাতাস ঠিক মতো বেরচ্ছে কি না। ইলেকট্রিক শক যেন না লাগে সেই দিকে খেয়াল রাখুন। ভিজে হাতে সুইচে বা মেশিনে দেবেন না। দরকার হলে রাবারের শুকনো চটি পরবেন।

আরও পড়ুন: হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছেই, কোথায় সমস্যা?

• ইভাপোরেটর কয়েল বাইরে থেকে পরিষ্কার করে মুছে রাখবেন।

• আউটডোর ইউনিট নিজেরা পরিষ্কার না করাই ভাল। শুধুমাত্র ধুলো-ময়লাপরিষ্কার করে মুছে নিলেই যথেষ্ট।

• বছরে এক বার এয়ার কন্ডিশন মেশিন সার্ভিসিং করিয়ে নিতে ভুলবেন না।

• ইলেকট্রিসিটির বিল নিয়ন্ত্রণে রাখতে কিছু ক্ষণ চলার পর এসি বন্ধ করে ফ্যান চালিয়ে রাখতে পারেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন