Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
Riddhi Sen

Riddhi Sen and Rwitobroto Mukherjee: সাজো সাজো রবে

দিন দশেক পরেই দেবীপক্ষের সূচনা। ঋদ্ধি সেন এবং ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়ের স্টাইলশিট জানান দিচ্ছে, পুজোয় নজর কাড়ার উপায়।

সায়নী ঘটক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৭:০৯
Share: Save:

সাজগোজে কি মেয়েদের একচেটিয়া আধিপত্য? এ ধারণা বহুকাল অতীত। পরীক্ষানিরীক্ষা করতে ছেলেরাও পিছিয়ে নেই। আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে মানানসই পোশাক ক্যারি করতে পারাই আসল। অফবিট ফ্যাশন কি শুধু রণবীর সিংহদের জন্য? মোটেই নয়। পাড়ার প্যান্ডেলে যে ছেলেটি অঞ্জলির ফুল বিতরণ করছে বা বিসর্জনে ধুনুচি হাতে তুলে নিচ্ছে— এক্সপেরিমেন্টাল পোশাকে সে-ও নজর কাড়তে পারে সহজেই। শুধু চাই ঠিক পোশাক নির্বাচন।

ছেলেদের জন্য পুজোর বাজার মানেই একঘেয়ে পাঞ্জাবি আর শার্ট— এই ধারণা থেকে বেরিয়ে আসা দরকার প্রথমেই। সাহস করে কিনে ফেলুন অভিনব কাটের পোশাক। ঋদ্ধির পরনে র-সিল্কের ইন্দো-ওয়েস্টার্ন কুর্তায় আলাদা মাত্রা যোগ করেছে তার অ্যাসিমেট্রিক কাট। শার্ট-স্টাইল কুর্তার নীচে ওয়ান সাইডেড প্লিটস ইউরোপীয় ছোঁয়া এনে দিয়েছে পোশাকটিতে। সঙ্গে বেজ রঙা চুড়িদার। কাজ করা নাগরা স্টাইলের পাম্পস বা কোলাপুরি মানাবে এর সঙ্গে।

ঋতব্রত সেজে উঠেছেন অনিয়ন পিঙ্ক মটকা কুর্তায়। সঙ্গে মানানসই একটি স্টোল আবার পাল্টে দিতে পারে পুরো লুকই। ট্রাউজ়ার্সে শর্ট স্লিট এ ধরনের কুর্তার সঙ্গে মানায় ভাল। ডিজ়াইনার অভিষেক রায় জোর দিলেন পুনর্ব্যবহারযোগ্য , মিনিম্যালিস্টিক ফ্যাশনে, ‘‘পোশাকের কাট, রং বা সিলুয়েট— সব দিক থেকেই ছেলেরা এখন এক্সপেরিমেন্টের দিকে ঝুঁকছে। যা ‘ফেমিনিন’ বলে পরিচিত ছিল, স্বচ্ছন্দে ক্যারি করছে সেগুলিও।’’

পাঞ্জাবির সঙ্গে লেয়ার করতে আদি, অকৃত্রিম ভরসা খাদি জ্যাকেট। তবে কমবয়সিদের ক্ষেত্রে সে জ্যাকেট হবে রঙিন। ঋদ্ধি-ঋতব্রত দু’জনেই বেছে নিয়েছেন টেক্সচার্ড র সিল্ক কুর্তা সেট। সঙ্গে সুতোয় ফুলের নকশা তোলা নেহরু জ্যাকেট। বেসের গাঢ় রঙের সঙ্গে খোলতাই হয়েছে হালকা শেডের জ্যাকেট, চোখ টানছে তার উপরের এমব্রয়ডারি। এর সঙ্গে ফরমাল জুতো, কোলাপুরি বা কারুকাজ করা স্লিপ-অনও পরা যায়।

অ্যাকসেসরির ব্যবহারও সমান গুরুত্বপূর্ণ। সানগ্লাস, বেল্ট, স্টোল, ঘড়ি কিংবা স্কার্ফ, দিয়ে অ্যাকসেসরাইজ় করার চল অনেক দিনেরই। সঙ্গে হেয়ারস্টাইলের দিকেও নজর দিন। এথনিক ওয়্যারের সঙ্গে হেয়ার পার্টিং করে জেলের সাহায্যে সামান্য তুলে দিতে পারেন সামনের অংশের চুল। চুলের ধরন বুঝে হেডব্যান্ড বা বান্দানা দিয়েও চলতে পারে স্টাইলিং। চশমার ফ্রেম কিন্তু লুক পাল্টে দিতে পারে পুরোপুরি। ঋদ্ধি যেমন ইন্দো-ওয়েস্টার্নের সঙ্গে রাউন্ড ফ্রেমের চশমা বেছেছেন। ঋতব্রত কুর্তার সঙ্গে অ্যাভিয়েটর গ্লাসেস।

আর আছে ওয়েস্টার্ন ওয়্যার। সারা বছর তা পরার সুযোগ থাকলেও উৎসবের মরসুমে সনাতন সাজেই যেন খোলতাই হয় বাঙালি ছেলেদের রূপ! এ বছর তাই ঐতিহ্য মেনেই চলুক এক্সপেরিমেন্ট।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.