পুজোর দিনগুলোয়ে সবচেয়ে বেশি চাপ পড়ে পায়ের পাতায়। এ দিকে কাজে তো কামাই নেই। তাই পায়ের বিশ্রামও নেই। পায়ের এই ক্লান্তি কাটাতে কিছু ব্যায়াম করতে পারলে খুব সহজেই ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন। এই সব ক’টা ব্যায়ামই যে কোনও চেয়ারে বসে করতে পারেন। খালি পায়ে ব্যায়ামগুলো করতে হবে, তাই জুতো খুলে নিলেই চলবে।

টো রেইজ়: চেয়ারে বসে পায়ের পাতা মাটিতে রাখুন। এ বার গোড়ালি মাটির সঙ্গে লাগিয়ে রেখে টো উপর দিকে তুলুন। একই ভাবে টোয়ের উপরে ভর দিয়ে গোড়ালিও তুলুন। এ ভাবে দশ বার করতে হবে।

টো স্প্লে: গোড়ালি মাটিতে রেখে টো উপর দিকে তুলতে হবে। আঙুলগুলিকে ছড়িয়ে দিন এ বার। দশ থেকে পনেরো বার এই স্প্লে করুন। পাঁচটা আঙুল মোটা রাবার ব্যান্ড দিয়ে বেঁধেও এই ব্যায়াম করতে পারেন। এতে আরাম বেশি পাবেন।

টো এক্সটেনশন: বাঁ পায়ের উপরে ডান পা তুলে বসুন। হাত দিয়ে ডান পায়ের টো পায়ের উলটো দিকে ধরে টানুন। এ ভাবে পাঁচ বার করে পা বদল করুন। ডান পায়ের উপরে বাঁ পা তুলে বসুন। এর পরে বাঁ পায়ের টো উলটো দিকে ধরে টানুন। 

টো কার্লস: একটি ছোট তোয়ালে মাটিতে পাতুন। এ বার চেয়ারে বসে পায়ের টো দিয়ে সেই তোয়ালে টেনে টেনে নিজের কাছে নিয়ে আসুন। দু’পা দিয়েই টো কার্ল করতে হবে পাঁচ বার করে। এতে পায়ের পেশির ক্লান্তি কেটে যায়। 

বল রোল: ক্রিকেট বা টেনিস বল থাকলে, সেটি মাটিতে রেখে পা দিয়ে রোল করুন। দু’পা দিয়েই করতে পারেন। এই ব্যায়াম টানা দু’মিনিট করতে হবে।

ব্যায়াম শেষে ঈষদুষ্ণ জলে মিনিটখানেক পায়ের পাতা ডুবিয়ে বসুন। জল থেকে পা তুলে ভাল করে মুছে বিশ্রাম নিতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে হাঁটাহাঁটি করতে শুরু করবেন না। এই ব্যায়ামের ফলে পায়ের পাতায় রক্ত সঞ্চালন ভাল হয়। ফলে পায়ের ক্লান্তি কেটে যায় নিমেষে। এ ছাড়া খোলা মাঠে ঘাসের উপরে কিংবা বালির উপরে খালি পায়ে হাঁটলেও পায়ের পাতা দু’টো আরাম পাবে।