সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হাতের কোমল স্পর্শ

শীতের রুক্ষ সময়ে ময়শ্চারাইজ়ার মাখলেও তা টেনে যায়। ফলে হাত হয়ে যায় শুষ্ক। হাতের যত্ন নেেবন কী ভাবে?

hand care
শীতে হাতের যত্নে প্রধান উপাদান হোক ময়শ্চারাইজার।

শীতকালে যতই গরম পোশাক জড়িয়ে থাকুন না কেন, হাত দু’টি মোটেও রেহাই পায় না ঠান্ডার প্রকোপ থেকে। যে সমস্ত অঙ্গ সবচেয়ে তাড়াতাড়ি শীতল হয়, তার মধ্যে অন্যতম হাত। কারণ হাত ছাড়া প্রায় কোনও কাজই সম্পূর্ণ হয় না। ময়শ্চারাইজ়ারের অভাবে হাত হয়ে ওঠে শুষ্ক, খসখসে, প্রাণহীন। আবার হাতের ত্বকের চামড়াও ফেটে লাল হয়ে যায়। তা হলে কেমন যত্ন নিলে শীতেও হাত হয়ে উঠবে কোমল?

হাতের যত্ন

  • হাত নরম রাখার একমাত্র উপায় হল ময়শ্চারাইজ় করা। ধোয়া হয়ে গেলেই ক’ফোঁটা ময়শ্চারাইজ়ার হাতে লাগিয়ে নিন। রাতে নারিশিং ক্রিম ব্যবহার করার সময়ে হাতের তালু, তালুর পিছন দিক, আঙুল, কব্জি থেকে শুরু করে কনুই পর্যন্ত ভাল করে মাসাজ করতে হবে।

  • যতটা সম্ভব কম হাত ধোয়ার চেষ্টা করুন। বেশ কিছু কাজ করার পরে হাত ধুতেই হবে। তাই প্রত্যেকটি ছোটখাটো কাজ করার পরে বারবার হাত ধুতে হলে, হাত আরও শুষ্ক হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যে সব ক্ষেত্রে টিসু দিয়ে হাত মুছলে হয়ে যাবে, সেখানে টিসুতেই কাজ সারুন। 

  • দরকারে হ্যান্ড স্যানিটাইজ়ার ব্যবহার করুন। তবে যে সমস্ত স্যানিটাইজ়ারে অ্যালকোহল থাকে, তা এড়িয়ে চলাই ভাল। কারণ এতে হাত আরও বেশি শুষ্ক হয়ে যায়। 

  • হাত ধোয়ার জন্য গ্লিসারিন এবং ক্রিম বেসড ওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন। এতে রুক্ষতা কমবে।

  • রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ময়শ্চারাইজ়ার ছাড়া ক’ফোঁটা অলিভ অয়েল ভাল করে মাসাজ করে নিতে পারেন।

  • স্নান করার আগে হাতে ভাল করে তেল মেখে নিন। যে বডি অয়েল আপনার ত্বকের সঙ্গে ভাল যায়, সেটিই ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়া তিলের তেল, আমন্ড অয়েল কিংবা অলিভ অয়েলও লাগাতে পারেন। তবে সেগুলি মাত্র কয়েক ফোঁটাই যথেষ্ট।

  • হাত অতিরিক্ত শুকিয়ে গেলে, হট অয়েল মাসাজ করতে পারেন। 

  • দু’টেবিল চামচ বেসনের মধ্যে সামান্য দুধ অথবা টক দই এবং এক ফোঁটা হলুদ গুঁড়ো দিয়ে মিহি মিশ্রণ তৈরি করুন। স্নানের আগে দু’হাতে ভাল করে সেই মিশ্রণ মেখে নিন। শুকিয়ে গেলে ঈষদুষ্ণ জলে হাত ধুয়ে নিতে পারেন।

  • অতিরিক্ত শুষ্ক হাত থেকে রেহাই পেতে দু’চামচ সানফ্লাওয়ার অয়েল, দু’চামচ পাতিলেবুর রস ও তিন চামচ চিনি মিশিয়ে মাসাজ করুন।

  • টিভি দেখার সময়ে বা অবসরে অল্প গ্লিসারিনের সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে দু’হাতে ভাল করে মাসাজ করতে পারেন। হাত নরম হবে।

  • দুধ, কমলালেবুর খোসা, চিনি... হাত নরম ও সতেজ রাখার জন্য অনেকেই নানা কিছু ব্যবহার করেন। তবে বেশি জরুরি ময়শ্চারাইজ়ার। শত ব্যস্ততাতেও ধরে থাকুন তাকে। তবেই হাতের স্পর্শ হবে কোমল।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন