রান্নায় তো বটেই, রূপচর্চাতেও অলিভ অয়েলের ভূমিকা অনেক। এমনিতেই হৃদযন্ত্রের অসুখ রুখতে, খারাপ কোলেস্টেরল ঠেকাতে অলিভ অয়েলে ভরসা রাকার পরামর্শ দেন চিকিৎসক-পুষ্টিবিদরা। তবে কেবল অসুখ ঠেকাতেই এই তেল কার্যকর এমনই নয়, শীতে রুক্ষ ত্বককে মোলায়েম করে তুলতেও ওস্তাদ অলিভ অয়েল।

শুধু শীতকালেই নয় রূপচর্চায় সারা বছরই কাজে লাগানো যেতে পারে এই তেল। জলপাইয়ের অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ত্বকের ভিতরের স্তরে প্রয়োজনীয় খনিজের জোগান দিতে পারে। এর প্রভাবে ত্বক উজ্জ্বল থাকার পাশাপাশি টোনডও থাকে।

অলিভ অয়েলের প্রতি ফোঁটায় যে স্বাস্থ্যগুণ লুকিয়ে আছে, তাকে কাজেই লাগিয়েই প্রতি দিনের রূপচর্চায় আনতে পারেন নয়া ধরন। চুল থেকে ত্বক সবেতেই কাজে আসবে এই তেল।

আরও পড়ুন: মাঝেমধ্যেই খুব একা লাগে? এই সব উপায়ে দূরে সরান একাকীত্ব

পেটের মেদ নিয়ে দুশ্চিন্তা? প্রতি দিন এই সব ব্যায়ামেই ঝরিয়ে ফেলুন দ্রুত

  • ঠোঁটের নরম ভাব ধরে রাখতে ও ঠোঁট ফাটা রুখতে এক চা চামচ অলিভ অয়েল, কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ও আধ চামচ চিনি মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ ঠোঁটে লাগিয়ে চিনি না গলে যাওয়া অবধি মাসাজ করুন। দিনে এক বার এটি করতে পারলেই উপকার পাবেন অনেকটা।

  • রাসায়নিকের ছোঁয়ায় চুলের নানা রকম ক্ষতি হয়। তাই বাজারচলতি কন্ডিশনারে আস্থা না রেখে অলিভ অয়েল দিয়েই সারতে পারেন এই কাজ। আধ কাপ অলিভ অয়েল গরম করে তাতে চায়ের লিকার মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে নিলেই কন্ডিশনারের উপকার পাবেন।

  • এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল চার পাঁচ চামচ মিশিয়ে নিন স্নানের জলে। ত্বককে নরম তো রাখবেই, সারা দিনে ঘামও হবে অনেক কম।

  • ভুরু তোলার পর বা দাড়ি কামানোর পর ত্বক জ্বালা করলে বা কোনও রকম র‌্যাশ বেরলে অলিভ অয়েলে ভরসা রাখুন। ভুরু তোলার পর ভুরুর চারপাশে এক ফোঁটা অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিন। শেভিংয়ের পরে গালে ঘষে নিন অলিভ অয়েল।