ঘাম, রাস্তার ধুলো-ময়লা, মাথার ত্বক থেকে বেরনো তেল সব মিলেমিশে চিটচিটে চুলের সমস্যা নতুন নয়। দু’-এক দিন অন্তর শুধু শ্যাম্পুই নয়, কন্ডিশনারও চুলের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। শ্যাম্পুর পরে কন্ডিশনিং করা কোনও নতুন কথা নয়। অনেকে আধুনিক নিয়মে রিভার্স কন্ডিশনিংয়েও বিশ্বাসী।

তার উপর আজকাল চুলে অনেকেই হেয়ার স্প্রে, জেল ও হিট প্রোডাক্ট ব্যবহার করেন। এর রাসায়নিক উপাদেনও চুল কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই চুলের যত্নে যতটা সম্ভব রাসায়নিক পদার্থ এড়িয়ে চলাই ভাল। বাজারচলতি নানা কন্ডিশনারেও রাসায়নিক উপাদানের বাড়বাড়ন্ত তাকে। যা ত্বকের নানা ক্ষতিও ডেকে আনে।

তা ছাড়া এ সব কন্ডিশনার চুলের প্রাকৃতিক তৈলাক্ত ভাব শুষে নিয়ে চুলকে রুক্ষও করে তোলে। তাই সে সব সমস্যা থেকে বাঁচতে বাড়িতেই তৈরি করে নিতে পারেন হেয়ার কন্ডিশনার। কিন্তু তার পদ্ধতি জানেন কী? সহজলভ্য উপাদান ও পকেটসই দামে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন কিছু কন্ডিশনার।

আরও পড়ুন: চোখে ক্লান্তির ছাপ, সহজেই দৃষ্টিশক্তি ক্ষীণ? রইল সমাধান

দারচিনির কন্ডিশনার: দারচিনি মাথার তালুতে রক্ত সঞ্চালন করে এবং চুলের গোড়াকে শক্ত করে। চুলে জেল্লা ফিরিয়ে আনে। ২চা চামচ দারচিনির গুঁড়ো, ২চা চামচ মধু, ২টি ডিম, ৪চা চামচ দুধ, ১/৪ ভাগ মেয়োনিজ একটি পাত্রে রেখে গরম করে নিন। সেই গরম মিশ্রণটি স্ক্যালপে ভাল করে লাগিয়ে নিন। মিশ্রণটি কন্ডিশনিংও করবে এবং চুলের হারানো জেল্লা ফিরিয়ে আনবে। ভাল ফল পেতে সপ্তাহে দু'দিন ব্যবহার করতে পারেন।

চুলকে মোলায়েম করে ডিমের কন্ডিশনার।

ডিমের কন্ডিশনার: ডিম চুলের পক্ষে খুবই উপকারী। ডিম চুলকে শুষ্ক হওয়ার হাত থেকে বাঁচায়। এর সঙ্গে ইয়োগার্ট ও মেয়োনিজ মিশিয়ে নিয়ে প্যাক বানিয়ে ফেলুন। চুলকে মোলায়েম করবে এই প্যাক।  চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত এটি লাগাবেন। একটি শাওয়ার ক্যাপ পড়ে নিন। ৪০ মিনিট রেখে তা ঈষদুষ্ণ গরম জলে ধুয়ে নিন।

আরও পড়ুন: একটানা অনেক ক্ষণ টিভির সামনে বসে বিশ্বকাপ? এ সব ব্যায়ামেই দূরে রাখুন হাড়-পেশীর অসুখ

নারকেল তেল দিয়ে কন্ডিশনিং:  নারকেল তেল পাকা চুলকে কালো করতে সাহায্য করে। একটি কাচের পাত্রে ৩ থেকে ৪ চা চামচ নারকেল তেলের সঙ্গে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে মিশ্রণটিকে হালকা গরম করুন। এর পর মিশ্রণটিকে ভিজে চুলে লাগিয়ে নিন। আধ ঘন্টা রেখে তা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কলার কন্ডিশনার:  কলার সঙ্গে মধু ও অলিভ ওয়েল ভাল করে মিশিয়ে মিশ্রণ বানান। সেই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে আধ ঘণ্টা রেখে দিন। তার পরে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি চুল পড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে৷