মেয়েদের প্রিয় বন্ধু বলে যদি কেউ থেকে থাকে, তবে তা হল  প্রসাধনী। প্রথম ইন্টারভিউ, খুব টেনশনের মাঝে চোখের উপরে-নীচে কাজলের টান দিয়ে নিন, দেখবেন আত্মবিশ্বাস বেড়ে গিয়েছে কয়েক গুণ। আবার ধরুন খুব মন খারাপ, একটা লিপস্টিকই যথেষ্ট মন ভাল করতে। এমন বন্ধু আর কে আছে? এই বন্ধুকে কি হাতছাড়া করা যায়? তাই যেখানেই যান না কেন, সঙ্গে থাকুক মেকআপ কিট। কিন্তু এই পোর্টেবল মেকআপ কিটে কী কী রাখবেন, সেটা জেনে নিন।

 

সিটিএম জরুরি

সিটিএম অর্থাৎ ক্লেনজ়িং, টোনিং, ময়শ্চারাইজ়িং প্রত্যেক ত্বকের জন্য দরকার। তাই নিজের ত্বকের ধরন অনুযায়ী ক্লেনজ়ার, টোনার ও ময়শ্চারাইজ়ার ভরুন। আর এর সঙ্গে ফেসওয়াশও রাখতে পারেন।

 

বেস তৈরির জন্য

মেকআপ যা-ই করুন না কেন, তার বেস ভাল হওয়া দরকার। তাই প্রাইমার ও ফাউন্ডেশনও রাখতে হবে সঙ্গে। তবে ঘুরতে িগয়ে রোদে বেরোতে হলে এসপিএফ যুক্ত ফাউন্ডেশন কেনাই ভাল।

 

চোখের জন্য

আইশ্যাডোর একটা প্যালেট রাখতে পারেন। দেখে নেবেন নীল, সবুজ, গোলাপি, বেজ, সোনালি রং যেন থাকে। কাজল তো থাকছেই। সঙ্গে রাখুন আইলাইনার ও মাসকারাও। 

 

হাসি থাকুক অধরে

ঠোঁটের যত্ন নিতে কিন্তু অনেক কিছুই দরকার। প্রথমেই একটা লিপ বাম রাখুন হাতের কাছে। কোনও রকম প্রসাধনী ছাড়া টিন্টেড লিপ বামেই অনেক কাজ হয়ে যায়। আর রাখুন লিপ লাইনার ও লিপস্টিক। তবে একটা লিপস্টিক নয়, অন্তত পক্ষে চারটি ভিন্ন শেডের লিপস্টিক রাখুন। নুড, রেড, পিঙ্ক ও চকলেট শেডের লিপস্টিক নিলে মোটামুটি সব পোশাকের সঙ্গেই চলে যাবে।

 

ব্লাশার

গালে একটু ব্লাশারের ছোঁয়া না থাকলে কি ভাল লাগে? একটা হালকা আর একটা গাঢ় শেডের ব্লাশার রাখতে পারেন।

 

ব্রাশ ও স্পঞ্জ

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল এই দু’টি জিনিস। যে কোনও প্রসাধনী মুখে প্রয়োগ করতে এদের দরকার তো লাগবেই। তাই কয়েক ধরনের ব্রাশ ও স্পঞ্জ অবশ্যই সঙ্গে রাখবেন। বিশেষত আইশ্যাডো ও ব্লাশার লাগানোর ব্রাশ তো থাকবেই। আর পুরো মুখে ফাউন্ডেশন লাগানোর একাধিক স্পঞ্জও থাকবে।

এ ছাড়াও একটা সানস্ক্রিন, মেকআপ রিমুভার, কিছু কটন বল ও ওয়াইপ রাখতে পারেন। এগুলোও বেশ কাজে লাগে।

ব্যস! তা হলে তৈরি হয়ে গেল আপনার পোর্টেবল মেকআপ কিট। এ বার ঘুরতে গেলে বা বাইরে গেলে সঙ্গে রাখুন এই ব্যাগ।

মডেল: দর্শনা বণিক, ছবি: অমিত দাস, মেকআপ: উজ্জ্বল দত্ত