• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রেশন কার্ডের সঙ্গে এ মাসেই জুড়তে হবে আধার নম্বর, কী ভাবে?

Aadhaar linking with ration card
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

রেশন দোকান থেকে চাল-গম বা অন্যান্য সামগ্রী কিনতে বাধ্যতামূলক হতে চলেছে আধার কার্ডও। তবে আধার নম্বরের সঙ্গে রেশন কার্ডের সংযুক্তিকরণ করাতে হবে। কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই সেই সংযুক্তিকরণের সময়সীমা বাড়িয়েছে চলতি মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত। কী ভাবে করবেন ওই সংযুক্তিকরণ? কেনই বা করাবেন? যাঁরা ইন্টারনেট ব্যবহারে স্বচ্ছন্দ নন, তাঁরা কি রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বর জুড়তে পারবেন না?

প্রথমেই বলে রাখা ভাল, আগামী বছরের ৩০ জুনের মধ্যে ‘এক দেশ, এক রেশন কার্ড’ প্রকল্প চালু করতে চায় নরেন্দ্র মোদী সরকার। ওই প্রকল্পের আওতায় রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বর জুড়তে বলা হয়েছে। তা না হলে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্তই রেশন দোকান থেকে জিনিসপত্র কেনা যাবে। তবে সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় উপভোক্তা বিষয়ক, খাদ্য ও গণবণ্টন মন্ত্রক এ-ও জানিয়েছে, আধার নম্বর না থাকার জন্য কোনও উপভোক্তাকে রেশন থেকে বঞ্চিত করা যাবে না।

রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বরের সংযুক্তিকরণ অনলাইন এবং অফলাইন— দু’ভাবেই করা যাবে।

আরও পড়ুন: দীপিকাদের চ্যাট ফাঁস কী ভাবে? বিপাকে পড়ে সুরক্ষার আশ্বাস হোয়াটসঅ্যাপের

 

অনলাইনে কী ভাবে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বরের সংযুক্ত করবেন?

—প্রথমে আধার কার্ডের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট https://uidai.gov.in/ -তে লগ ইন করুন।

—’স্টার্ট নাও’-তে ক্লিক করুন।

—এর পর আপনার ঠিকানার বিশদ বিবরণ দিন। যেমন, জেলা এবং রাজ্যের নাম লিখুন।

—বিভিন্ন অপশনের মধ্যে থেকে ‘বেনিফিট টাইপ’-এ রেশন কার্ড অপশনটি বেছে নিন।

—প্রকল্পের নাম বাছুন (এ ক্ষেত্রে ‘রেশন কার্ড’ হবে)।

—এ বার রেশন কার্ড নম্বর, আপনার আধার নম্বর, ই-মেল এবং মোবাইল নম্বর দিন।

—একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) আসবে আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বরে।

—ওয়েবসাইটে ওটিপি দিলেই গোটা প্রক্রিয়াটি শেষ হয়েছে জানিয়ে একটি নোটিফিকেশন পাবেন।

—এর পর আপনার তথ্য খতিয়ে দেখা হবে। তা সম্পন্ন হলেই রেশন কার্ডের সঙ্গে আপনার আধার নম্বরের সংযুক্তিকরণ হবে।

 

অফলাইনে কী ভাবে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বরের সংযুক্ত করবেন?

যে সমস্ত উপভোক্তা অনলাইনে ততটা স্বচ্ছন্দ নন, তাঁরা রেশন দোকানে গিয়েও সংযুক্তিকরণ করতে পারেন।

অফলাইনের সংযুক্তিকরণের জন্য আপনার (আপনার পরিবারের সদস্য থাকলে, তাঁদেরও) আধার কার্ডের ফোটোকপি প্রয়োজন। এ ছাড়া, পরিবারের কর্তার একটি পাসপোর্ট সাইজের ফোটো এবং রেশন কার্ড লাগবে। কোনও উপভোক্তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট আধার নম্বরের সঙ্গে সংযুক্ত না থাকলে ওই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের পাসবইয়ের ফোটোকপি জমা দিতে হবে। এ বার আপনার আধার নম্বরের সঙ্গে এই সমস্ত কিছুই জমা করুন। এর পর যে মোবাইল নম্বরটি আপনার আধার কার্ডে উল্লিখিত তাতে একটি এসএমএস যাবে। আধার নম্বরের সঙ্গে রেশন কার্ডের সংযুক্তিকরণ হয়ে গেলে আরও একটি এসএমএস পাবেন।

আরও পড়ুন: কৃষি বিল নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে, দাবি প্রধানমন্ত্রীর

গোটা প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে দেশের যে কোনও প্রান্ত থেকেই রেশন দোকান থেকে খাদ্যশস্য বা অন্যান্য সামগ্রী কেনা যাবে। কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি, এর ফলে ভুয়ো রেশন কার্ডের ব্যবহার বন্ধ করা যাবে। অন্য দিকে, এই প্রকল্প চালু হলে কোনও উপভোক্তা ভিন্-রাজ্যে গিয়ে বসবাস শুরু করলেও রেশন থেকে বঞ্চিত হবেন না। কারণ, দেশের সমস্ত রেশন কার্ডের তথ্য জমা থাকবে একটি সার্ভারে। যা থেকে দেশের যে কোনও প্রান্তে বসেই রেশন ডিলারের হাতের মুঠোয় থাকবে উপভোক্তার তথ্য। ফলে বাসস্থান বদলালেও নতুন করে রেশন কার্ড তৈরির ঝামেলা এড়ানো যাবে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন