ডেপুটি নিয়োগে রেকর্ড গড়ার পথে অন্ধ্রপ্রদেশের নয়া মুখ্যমন্ত্রী ওয়াইএস জগনমোহন রেড্ডি। গত সপ্তাহেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহণ করেছেন তিনি। আর এ সপ্তাহেই জানিয়ে দিলেন, পাঁচ জন উপমুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করবেন তিনি। সেই সঙ্গে মন্ত্রিত্বের মেয়াদও ৩০ মাসে কমিয়ে এনেছেন।

২৫ জন মন্ত্রী নিয়ে শনিবার রাজ্যে মন্ত্রিসভা গঠন করতে চলেছেন জগনমোহন। তার আগে শুক্রবার ওয়াইএসআর কংগ্রেসের নির্বাচিত বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। সেখানেই নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানান।

জগনমোহন জানান, তফসিলি জাতি, তফসিলি উপজাতি, অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি, সংখ্যালঘু এবং কৃষিজীবী কাপু সম্প্রদায়ের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পাঁচ জনকে উপমুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করা হবে। শুধু তাই নয়,  বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত তফসিলি জাতি, তফসিলি উপজাতি, অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের মন্ত্রিসভার ৫০ শতাংশ আসন ছেড়ে দেবেন বলেও ঘোষণা করেন জগনমোহন।

আরও পড়ুন: গ্লাভসে ফৌজি চিহ্ন সরাতে হবে কেন? ধোনির পাশে দাঁড়িয়ে আইসিসিকে চিঠি বোর্ডের​

আরও পড়ুন: গজলডোবায় জমি বিক্ষোভে মন্ত্রী গৌতম দেবকে গো ব্যাক ধ্বনি, কালো পতাকা​

তবে মন্ত্রীদের কেউই টানা পাঁচ বছর পদে থাকতে পারবেন না। আড়াই বছর পর নতুন কাউকে ওই পদে বসানো হবে। এ ব্যাপারে জগনমোহনের যুক্তি, ‘‘আড়াই বছর পর মন্ত্রিসভার রদবদল করব আমি। তাতে ৯০ শতাংশ পদেই নতুন কাউকে বসানো হবে, যাতে অন্যরাও মন্ত্রী হওয়ার সুযোগ পান।’’ তবে কাদের মন্ত্রী করা হবে, তা খোলসা করেননি তিনি।

এর আগে যেহেতু দেশের আর কোনও মুখ্যমন্ত্রীকে পাঁচ জন উপমুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করতে দেখা যায়নি, তাই জগনমোহনের সিদ্ধান্ত নিয়ে ইতিমধ্যেই কাটাছেঁড়া শুরু হয়ে গিয়েছে। তাঁর পূর্বসূরি তেলুগু দেশম পার্টির প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু, নিম্মাকায়ালা চিন্না রাজাপ্পা এবং কে ই কৃষ্ণমূর্তি, এই দু’জনকে উপমুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করেছিলেন। তাঁরা যথাক্রমে স্বরাষ্ট্র এবং রাজস্ব দফতরের দায়িত্বে ছিলেন।

(কী বললেন প্রধানমন্ত্রী, কী বলছে সংসদ- দেশের রাজধানীর খবর, রাজনীতির খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)