• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

একশো বছর পর জালিয়ানওয়ালাবাগের জন্য ক্ষমা চাইলেন ব্রিটিশ আর্চবিশপ

Jallianwala Bagh
জালিয়ানওয়ালাবাগে আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবি। ছবি: এএফপি।

Advertisement

মৃতের সংখ্যায় হেরফের হলেও জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের ভয়াবহতা নিয়ে মতপার্থক্য নেই ইতিহাসবিদদের মধ্যে। এ বার তা মেনে নিলেন ইংল্যান্ডে খ্রিস্টধর্মের মানুষের তীর্থক্ষেত্র হিসাবে প্রসিদ্ধ ক্যান্টারবারি-র আর্চবিশপও। একশো বছর আগের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের জন্য ক্ষমা চাইলেন তিনি। মাটিতে লুটিয়ে পড়ে অনুশোচনা প্রকাশ করলেন।

দু’দিনের সফরে সোমবার সস্ত্রীক অমৃতসর এসে পৌঁছন ক্যান্টারবারির আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবি। মঙ্গলবার জালিয়ানওয়ালাবাগ স্মৃতি উদ্যানে যান তিনি। সেখানেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে নৃংশসতার জন্য ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘‘ব্রিটিশ সরকারের প্রতিনিধি নই আমি। নই রাজনীতিকও। তবে ধর্মীয় নেতা হিসাবে যে মর্মান্তিক ইতিহাসের সাক্ষী হলাম, তাতে শোকস্তব্ধ আমি। যে জঘন্য অপরাধ ঘটানো হয়েছে, তার জন্য অত্যন্ত লজ্জিত।’’

জালিয়ানওয়ালাবাগ স্মৃতি উদ্যানের ভিজিটর বুকে আর্চবিশপ জাস্টিন লেখেন, ‘‘একশো বছর আগে এই উদ্যান যে নৃশংসতার সাক্ষী থেকেছে, তাতে আজও এখানে এসে লজ্জায় মাথা নত হয় যায়। মৃতদের পরিবার এবং আত্মীয়েরা সেই ক্ষত কাটিয়ে উঠবেন আশা করি। সেই সঙ্গে প্রার্থনা করি, আমরা যেন ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে পারি। হিংসার শিকড় উপড়ে ফেলে ছড়িয়ে দিতে পারি সমন্বয়ের বার্তা।’’ ২০০ বছরের বেশি সময় ধরে অপশাসনের জন্য ব্রিটিশ সরকারকে ক্ষমা চাইতে হবে বলে ইতিমধ্যেই ভারতের তরফে একাধিক বার দাবি তোলা হয়েছে। জালিয়ানওয়ালাবাগ নিয়ে তিনিও কি ব্রিটিশ সরকারকে ক্ষমা চাইতে বলবেন? উত্তরে আর্চবিশপ জাস্টিন বলেন, ‘‘নিজের অবস্থান স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছি আমি। তা ইংল্যান্ডেও পৌঁছে যাবে।’’

এ ভাবেই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আর্চবিশপ। ছবি: এএফপি।

আরও পড়ুন: জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তান-চিনের যৌথ বিবৃতি খারিজ ভারতে​

আরও পড়ুন: কাশ্মীর ভারতের অঙ্গ, বলে ফেললেন পাক বিদেশমন্ত্রী​

তবে এই প্রথম নয়, এ বছরের এপ্রিলে জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের শতবর্ষেও দুঃখপ্রকাশ করেছিলেন আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবি। ব্রিটেনের মানুষ এই লজ্জার দায় ঝেড়ে ফেলতে পারে না বলে সেই সময় মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন