নাগরিক পঞ্জি-র খসড়া প্রকাশের পর থেকেই বাঙালিদের চিহ্নিত করে মারা হচ্ছে অসম-মেঘালয় সীমান্তে।  আজ সংসদে এই অভিযোগ করেন অসমের সাংসদ সুস্মিতা দেব। এই এলাকার বাঙালিদের নিরাপত্তার দাবিতে আজ চিৎকার করতে করতে সংসদের ওয়েলেও নেমে আসেন শিলচরের কংগ্রেস সাংসদ।

বুধবার অধিবেশন শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই সরব হন সুস্মিতা দেব। তাঁর অভিযোগ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ শুধুই মৌখিক ভাষণে  ব্যস্ত। তাতে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। উল্টে মার খাচ্ছেন বাঙালিরা। নাগরিক পঞ্জি-র খসড়া তালিকায় নাম না থাকা চল্লিশ লক্ষ বাঙালির অবিলম্বে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হোক, এই দাবি করেছেন তিনি।

অসমের শিলচরের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকার সাংসদ সুস্মিতা দেব। তাঁর অভিযোগ, নাগরিক পঞ্জি প্রকাশের সময় পর্যাপ্ত স্ক্রুটিনি করা হয়নি। এই দায়িত্বজ্ঞানহীনতার জন্যই আজ চারিদিকে দিশেহারা পরিস্থিতি।

আরও পড়ুন: ‘ঘৃণা ছড়াচ্ছেন মমতা’! অসমে থানায় অভিযোগ বিজেপির

কিছুক্ষণ প্রতিবাদের পর তখনকার মত চুপ করলেও জিরো আওয়ারে ফের সোচ্চার হন সুস্মিতা দেব। দিশেহারা পরিস্থিতিতে অসম থেকে যে মানুষেরা সীমানা পেরিয়ে মেঘালয় রাজ্যে ঢুকছেন, তাঁদের নিরাপত্তার দায়িত্ব নিতে কেন্দ্রকে অনুরোধ করেন তিনি। এই স্ক্রুটিনির দায়িত্ব মেঘালয়ের স্থানীয়রা নিচ্ছেন বলেই মারধরের ঘটনা ঘটছে বলে জানান তিনি।  

আরও পড়ুন: ধর্ষণের আগে ৬৭ রকমের মাদক খাওয়াতেন ‘হান্টারওয়ালে আঙ্কল’