• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে গণধর্ষণের পরিকল্পনা আসলে এক ছাত্রীর! ‘বয়েজ লকার রুম’ বিতর্কে দাবি পুলিশের

Bois Locker Room
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

‘বয়েজ লকার রুম’ বিতর্কে এ বার নয়া মোড়! সহপাঠিনীদের গণধর্ষণের পরিকল্পনা করা বা অশ্লীল কথাবার্তা নাকি ‘বয়েজ লকার রুম’ গ্রুপের কোনও কিশোরের কাজ নয়। একটি ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিজেকে কিশোর পরিচয় দিয়ে তা করেছিল দিল্লির এক ছাত্রী। ওই ছাত্রীকে গণধর্ষণের প্রস্তাব দিয়ে এক কিশোরের সঙ্গে কথাবার্তা চালিয়েছিল সে। প্রাথমিক তদন্তের পর এ দাবি দিল্লি পুলিশের সাইবার অপরাধ শাখার। 

গোটা বিষয়টি নিয়ে দেশ জুড়ে নিন্দার ঝড় বয়ে গেলেও ওই পড়ুয়াদের গ্রেফতার করেননি তদন্তকারীরা। তা কেন? দিল্লি পুলিশের এক শীর্ষ আধিকারিক অন্বেষ রায় বলেন, “ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করা অপরাধ হলেও বিদ্বেষমূলক মনোভাব থেকে এ কাজ করেনি ওই ছাত্রীটি। সে কারণেই আমরা কোনও মামলা রুজু করছি না।”

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ‘বয়েজ লকার রুম’-এর যে চ্যাটের স্ক্রিনশটটি নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত, তা আসলে এক ছাত্রী নিজেকে 'কিশোর' পরিচয় দিয়ে অন্য এক ছাত্রকে পাঠিয়েছিল। এমনকি, ওই চ্যাটটি ‘বয়েজ লকার রুম’-এরও অংশ নয়। স্ন্যাপচ্যাট-এ ‘সিদ্ধার্থ’ নামের এক ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করে তা শুরু করেছিল ওই ছাত্রীটি। ওই চ্যাটে নিজেকে এক কিশোর হিসেবে পরিচয় দিয়ে কথোপকথন শুরু করেছিল সে। তদন্তকারীদের আরও দাবি, কিশোর পরিচয় দিয়ে ছাত্রীটি নিজেকে গণধর্ষণের কথা বলেছিল। এ বিষয়ে ওই কিশোরের প্রতিক্রিয়া জানার জন্যই এমনটা করেছিল ওই ছাত্রীটি। গোটা বিষয়টি ওই কিশোর জানতই না। এমনকি, এই গণধর্ষণের পরিকল্পনায় অংশ নিতেও রাজি হয়নি কিশোরটি। ওই কথোপকথনের পর স্ন্যাপচ্যাটে ওই ছাত্রীর সঙ্গে কথাবার্তাও বন্ধ করে দেয় সে। তবে এই কথোপকথনের স্ক্রিনশটটি ‘বয়েজ লকার রুম’ গ্রুপে শেয়ার করে কিশোরটি। যা ওই গ্রুপের অন্য এক সদস্য সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করার পর তা ভাইরাল হয়ে যায়। 

আরও পড়ুন: ছাত্রদের ইনস্টাগ্রাম গ্রুপে গণধর্ষণের পরিকল্পনা! সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হতেই শোরগোল

আরও পড়ুন: বেশি মিউটেশনেই কি মৃত্যু বেশি কলকাতায়

‘বয়েজ লকার রুম’ বিতর্কে গত সপ্তাহে দিল্লির এক দ্বাদশ শ্রেণির কিশোরকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। ইনস্টাগ্রামে ওই গ্রুপ শুরু করেছিল সে। ওই গ্রুপে নাবালিকাদের গণধর্ষণ করার পরিকল্পনা করা এবং তাদের অশ্লীল ছবি পোস্ট করা নিয়ে উত্তাল হয় সোশ্যাল মিডিয়া।

 

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন