রাজ্যের জনসংখ্যা ক্রমাগত কমতে থাকায় আশঙ্কা প্রকাশ করলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। সেই ছবিটাই বদলাতে এবার নতুন পদক্ষেপ করতে চলেছে তাঁর সরকার। জনসংখ্যা বাড়াতে তরুণ দম্পতিদের এগিয়ে আসবার জন্য ডাক দিয়েছেন তিনি। তাঁদের উৎসাহিত করতে দু’য়ের বেশি সন্তান থাকলে দম্পতিদের জন্য বিশেষ সরকারি সুযোগ-সুবিধার ঘোষণাও করেছে তাঁর সরকার।

অন্ধ্রের জনসংখ্যার মাত্র ৫০ শতাংশের বয়স ২৫ বছর বা তার থেকে কম। কেন্দ্রের পরিবার পরিকল্পনা নীতির কারণে জন্ম নিয়ন্ত্রণের পথে হেঁটেই জনসংখ্যা দিনে দিনে কমেছিল বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবুর। পৃথক রাজ্য হিসেবে তেলঙ্গানা গড়ে ওঠার আগে, ২০১১ সালের জনগণনা অনুযায়ী জনবহুল রাজ্যের তালিকায় দশ নম্বরে ছিল অন্ধ্রপ্রদেশ। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতিটা আরও একটু খারাপ।

অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রীর মতে গত ১০ বছরে অন্ধ্রপ্রদেশের জনসংখ্যা ১.৬ শতাংশ কমেছে। এখনই জনসংখ্যায় তরুণদের অনুপাত বাড়াতে না পারলে আগামী দুই দশকে ‘বুড়ো’ দের রাজ্যে পরিণত হবে অন্ধ্রপ্রদেশ। কমবে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যাও। সেই সংখ্যা আরও বাড়িয়ে রাজ্যে তরুণ প্রজন্মের সংখ্যা বাড়ানোর আশু প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: পিস্তল কেড়ে দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে একাই রুখে দাঁড়ালেন দিল্লির ছাত্র

এ ছাড়াও বদল আসছে ভোটে দাঁড়ানোর নিয়মেও। এখনও অবধি নিয়ম অনুযায়ী দুইয়ের বেশি সন্তান থাকলে ভোটে দাঁড়ানোর সুযোগ মেলেনা অন্ধ্রপ্রদেশে। কিন্তু আসন্ন পৌরসভার ভোটে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন: রাজ্যসভায় পেশ তিন তালাক বিল, সংশোধনীর দাবিতে হইচই বিরোধীদের, মুলতুবি অধিবেশন