• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শ্রমিকদের পথে বসিয়ে রাসায়নিক স্প্রে, বিতর্কে যোগীর সরকার

corona
স্প্রে করা হচ্ছে জীবাণুনাশক। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল এই দৃশ্য।

বড় রাস্তার পাশে পিঠে ব্যাগ, মালপত্র-সহ এক দল লোক উবু হয়ে বসে রয়েছেন। তাঁদের ঘিরে ধরে পুরো শরীর ভিজিয়ে দেওয়া হচ্ছে জীবাণুনাশক রাসায়নিকে। যাঁরা সেই স্প্রে করছেন, তাঁদের মাথা থেকে পা পর্যন্ত ঢাকা বিশেষ পোশাকে। কিন্তু যাঁদের রাসায়নিকে স্নান করানো হচ্ছে, তাঁদের পরনে সাধারণ জামাকাপড়। জীবাণুনাশকে ভিজতে ভিজতে উবু হয়ে বসে থাকা মানুষগুলির কেউ মুখ ঢাকছেন কাপড়ে, কেউ আবার নিজের ক্ষতির পরোয়া না-করে পাশে বসা শিশুটির চোখ জোড়া ঢাকছেন দু’হাতে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের মোকাবিলা করতে এ ভাবেই উত্তরপ্রদেশের বরেলীর একটি চেক পয়েন্টে ভিন রাজ্য থেকে আসা এক দল শ্রমিককে ‘শুদ্ধকরণ’ করেছে যোগী আদিত্যনাথের প্রশাসন।

ওই ঘটনার ৩১ সেকেন্ডের ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে। এর পরেই উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারকে ‘অমানবিক’ আখ্যা দিয়ে সমালোচনায় সরব হয়েছে বিরোধী দল এবং নেট নাগরিকদের একাংশ।

উত্তরপ্রদেশে প্রশাসন সূত্রের খবর, সরকারের দেওয়া বাসে করে গত কাল দিল্লি, হরিয়ানা ও নয়ডা থেকে এক দল শ্রমিককে নিয়ে আসা হয়েছিল। বরেলীর একটি চেক পয়েন্টে পৌঁছনোর পরে তাঁদের বাড়ি যেতে দেওয়া হয়নি। স্যাটেলাইট বাসস্ট্যান্ডের কাছে রাস্তার ধারে শিশু থেকে বৃদ্ধ সকলকে উবু হয়ে বসিয়ে জীবাণুনাশক রাসায়নিকে স্নান করানো হয়। পুলিশ এবং স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীদের উপস্থিতিতেই গোটা ঘটনাটি ঘটেছে। ভিডিয়োতে এক পুলিশকর্মীকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘‘চোখ বন্ধ করো। বাচ্চাদের চোখ ঢেকে রাখো।’’

বরেলীতে কোভিড-১৯-এর দায়িত্বপ্রাপ্ত নোডাল অফিসার অশোক গৌতম জানিয়েছেন, স্যানিটাইজ়ার ও জলের সঙ্গে ক্লোরিন মিশিয়ে শ্রমিকদের স্নান করানো হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘‘ওঁদের জীবাণুমুক্ত করা দরকার ছিল। জীবাণুনাশক স্প্রে করার সময় ওঁদের চোখ বন্ধ রাখতে বলেছিলাম।’’ যদিও দমকল বিভাগের প্রধান জানিয়েছেন, সরকারি বাসগুলিকে জীবাণুমুক্ত করতে সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট ব্যবহার করা হচ্ছে। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, শ্রমিকদেরও কি ওই রাসায়নিকেই স্নান করানো হল? সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন বরেলীর জেলাশাসক।

ঘটনাটি নিয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে নিশানা করে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরার টুইট, ‘‘এমন অমানবিক কাজ করবেন না। শ্রমিকেরা এমনিতেই অনেক কষ্ট সহ্য করছেন। ওঁদের এ ভাবে রাসায়নিক দিয়ে স্নান করাবেন না। এতে ভাল হবে না, বরং ওঁদের ক্ষতিই হবে।’’ বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর মতে, এই ঘটনা নিষ্ঠুর ও অবিচারের উদাহরণ। এসপি প্রধান অখিলেশ যাদব জানতে চেয়েছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকায় রাসায়নিক দিয়ে স্নান করানোর কথা বলা আছে নাকি?

এক নেট নাগরিক লিখেছেন, করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে যখন প্রবাসী ভারতীয়দের ফেরানো হল, তখন তাঁদের সঙ্গে তো এমন আচরণ করা হয়নি। ভারত কি শুধু ধনীদের?’’ আর এক জনের প্রশ্ন, ‘‘করোনা নির্মূল করতে চান, নাকি নিরীহ মানুষকে?’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন