সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে বিরোধী রণনীতি কোন পথে এগোবে, তার একটি প্রাথমিক ছবি তৈরি হয়ে গেল প্রথম দিনেই। কংগ্রেস ও তৃণমূল আজ একই বিষয় নিয়ে রাজ্যসভায় আলোচনার জন্য নোটিস দিল পৃথক ভাবে। দেশের অর্থনৈতিক সঙ্কট এবং রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ও এয়ার ইন্ডিয়া বিক্রি করে দেওয়ার বিষয় নিয়ে আলোচনা চাইছে প্রত্যেক বিরোধী দল। তবে কংগ্রেসের তরফ থেকে পৃথক নোটিস দেওয়া হয়েছে। 

অন্য দিকে, তৃণমূলের দেওয়া নোটিসে সই করেছে সমাজবাদী পার্টি, বিএসপি, ডিএমকে, এনসিপি, আপ, এমনকি বাম দলেরা। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তৃণমূলের নোটিসে সই করেছে শিবসেনাও।

তৃণমূল সূত্রের বক্তব্য, অকংগ্রেসি বিজেপি-বিরোধী দলগুলিকে এক ছাতার তলায় এনে বিজেপি বিরোধিতার কৌশল আগেই নিয়েছিল দল। তা অব্যাহত রাখা হবে। বিজেপি-বিরোধিতার প্রশ্নে কংগ্রেসের সঙ্গে সংসদে কক্ষ-সমন্বয় বা তালমিল রেখে চলা হবে কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে স্পষ্ট যে বার্তাটি তৃণমূল দিতে চাইছে সেটা হল, সনিয়া গাঁধী অথবা রাহুলের নেতৃত্ব তথা কংগ্রেসকে অনুসরণ করবে না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল। 

আরও পড়ুন: সিয়াচেনে তুষার ধস, আটকে জওয়ানরা