দুর্নীতি বিতর্ক কাটিয়ে সেপ্টেম্বরেই ভারতে আসছে রাফাল যুদ্ধবিমান। একেবারে নির্ধারিত সময়ে ভারতের হাতে যুদ্ধবিমান তুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন এ দেশে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত আলেহান্দ্রে জিগলার। শুক্রবার ভোপালে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন আলেহান্দ্রে। সেখানেই সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাফাল নিয়ে মন্তব্য করেন তিনি।

পূর্বসূরি মনমোহন সরকারের চুক্তি বাতিল করে, ২০১৬ সালে ফরাসি সংস্থা দাসোঁর সঙ্গে নয়া চুক্তি স্বাক্ষর করে মোদী সরকার। চুক্তি মতো, ৫৯ হাজার ৮০০ কোটি টাকার বিনিময়ে ফরাসি সংস্থা দাসোঁর কাছ থেকে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কেনা হবে বলে স্থির হয়। তবে এখনই সবক’টি বিমান পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন আলেহান্দ্রে। সেপ্টেম্বরে প্রথম বিমানটি হাতে এলেও, সবগুলি পেতে সময় লাগবে মোট দু’বছর।

আলেহান্দ্রে বলেন, ‘‘আজ থেকে আগামী দু’মাসের মধ্যে, সেপ্টেম্বর মাসেই ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে প্রথম রাফাল বিমানটি তুলে দেওয়া সম্ভব হবে বলে আমার ধারণা। আগামী দু’বছরের মধ্যে বাকি বিমানগুলিও চলে আসবে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘রাফাল যুদ্ধবিমান অত্যন্ত উৎকৃষ্ট মানের। ভারত এই বিমান বেছে নেওয়ায় আমরা সম্মানিত বোধ করছি। আমার মনে হয়, রাফাল হাতে পেলে ভারতীয় বায়ুসেনা আরও শক্তিশালী হবে।’’ এ প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষা এবং নিরাপত্তা  ক্ষেত্রে পাঁচ দশক পুরনো ইন্দো-ফরাসি সম্পর্কের কথাও তুলে ধরেন তিনি।

আরও পড়ুন: কুমারস্বামী সরকার সঙ্কটে, ইস্তফা ৮ বিধায়কের, বিধান সৌধে অপেক্ষায় আরও ৫​

 তবে লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকে, গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে রাফাল যুদ্ধবিমান নিয়ে শাসকদল বিজেপি এবং বিরোধীদের মধ্যে টানাপড়েন  চলছেই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী খোদ অনিল অম্বানীর সংস্থাকে বিমান তৈরির অফসেট বরাত পাইয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলে আসছে কংগ্রেস-সহ অন্য বিরোধী দলগুলি। কিন্তু এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে  তা সযত্নে এড়িয়ে যান আলেহান্দ্রে।বরং সাফ জানিয়ে দেন, ‘‘একেবারেই বিতর্কে জড়ানোর আগ্রহ নেই আমার। আমি রেজাল্টে বিশ্বাস করি। বিশ্বাস করি বাস্তবে। আরল বাস্তবটা হল যে, আগামী দু’মাসের মধ্যে রাফাল ভারতে আসছে। এতেই গর্বিত আমি।’’

আরও পড়ুন: টিকিট থাকা সত্ত্বেও ৮২ বছরের বৃদ্ধকে শতাব্দীতে উঠতে দিল না রেলপুলিশ!​

এ যাবৎ বিরোধীদের তোলা যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে এসেছে মোদী সরকারও। তবে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে রাফাল চুক্তি সংক্রান্ত কোনও তথ্যই জনসমক্ষে আনতে রাজি হয়নি তারা।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।