স্কুল ব্যাগের ওজন কমানোর জন্য নির্দেশিকা থাকলেও তাতে স্কুলের বাচ্চাদের খুব একটা সুরাহা যে হয়েছে, সেই কথা বলা যায় না। বরং দিনকে দিন বেড়েই চলেছে স্কুল ব্যাগের ওজন। কিন্তু স্কুলের বাচ্চাদের বইয়ের ব্যাগের ওজন কমানোর জন্য যে পদক্ষেপ করলেন গুজরাটের একজন প্রধান শিক্ষক, তা বাকি দেশের কাছে উদাহরণ হতে পারে। গুজরাটের সেই প্রধান শিক্ষকের নাম আনন্দ কুমার খালাস বলে জানা গিয়েছে।

আনন্দ সম্প্রতি তাঁর মেয়েকে স্কুলে দিতে যাওয়ার সময় খেয়াল করেন যে তার মেয়ের স্কুলের ব্যাগটি অত্যন্ত ভারী। নিজেও একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক হওয়ার দরুণ, তিনি বুঝতে পারেন যে তাঁর স্কুলের বাচ্চাদেরও ঠিক কতটা ওজনের বইয়ের ব্যাগের বইতে হয়। এ বিষয়ে সমাধান খুঁজতে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সঙ্গে আলোচনা করতে চান তিনি। এই আলোচনা থেকেই উঠে আসে অভিনব একটি উপায় যা স্কুলের বাচ্চাদের বইয়ের ভার লাঘব করেছে অনেকটাই।

আনন্দ ঠিক করেছেন যে প্রতি মাসে বাচ্চাদের সমস্ত বিষয়ের সিলেবাস আগে থেকে ঠিক করে নেওয়া হবে। এর পর সেই সিলেবাস অনুযায়ী সমস্ত বই থেকে নির্দিষ্ট বিষয় গুলি কেটে নিয়ে একটি মাত্র আলাদা বই তৈরি করা হবে। এর সঙ্গে থাকবে ক্লাস ওয়ার্কের জন্য আলাদা কিছু সাদা পৃষ্ঠাও। অর্থাৎ একাধিক বইয়ের বদলে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের এখন বহন করতে হবে একটি মাত্র বই।

আরও পড়ুন: গণিত-ভীতি কাটাতে নয়া পদক্ষেপ সিবিএসই বোর্ডের

আনন্দের এই পদক্ষেপ মন কেড়েছে সকলেরই। বাচ্চাদের ব্যাগের ভার লাঘব করতে অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাদের অনুসরণ করে কি না, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

আরও পড়ুন: রাজ-শক্তি, সিবিআই ডিরেক্টরের পদ ফিরে পাওয়ার দু’দিনের মাথাতেই বিদায় বর্মার