শনিবার থেকে সারা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে চৈত্র নবরাত্রি উৎসব। উৎসব শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই গুরুগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় মাংসের দোকান বন্ধ করতে হিন্দু দক্ষিণপন্থী কয়েকটি সংগঠন বলপ্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ। হাতে অস্ত্র নিয়ে জোর জবরদস্তি মাংসের দোকান বন্ধ করার সেই ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়।

ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, হাতে লাঠি, হকিস্টিক, তরবারি নিয়ে নবরাত্রি চলাকালীন মাংসের দোকান বন্ধ রাখার জন্য দোকানদারদের হুমকি দিচ্ছে স্বঘোষিত হিন্দু সেনারা। জোর করে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে দোকানের শাটার। এ ভাবে হুমকি দিয়ে প্রায় ১৮০টি মাংসের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে গুরুগ্রামের অনেক দোকানদারই নিজেদের মাংসের দোকান বন্ধ রাখছেন।

হিন্দু সেনার গুরুগ্রাম ইউনিটের প্রধান রিতু রাজ বলেছেন,‘‘বিভিন্ন হিন্দু সংগঠনের প্রায় ২০০ জন সদস্য পুরনো রেলওয়ে রোডের কাছে শিবমন্দিরে জড়ো হয়। তারপর সবাই বিভিন্ন দিকে যায় মাংসের দোকান বন্ধ করার উদ্দেশ্যে।’’ এ দিন দোকান বন্ধ করেই ক্ষান্ত হননি হিন্দু সেনারা। শিব সেনার গুরুগ্রাম ইউনিটের প্রেসিডেন্ট গৌতম সাইনি জানিয়েছেন, গুরুগ্রামের পর এবার নিউ গুরুগ্রামের মাংসের দোকান বন্ধ করা তাঁদের পরবর্তী লক্ষ্য।

আরও পড়ুন: খিদে পেলে তিন বছরের মেয়েকে মদ খাইয়ে দেন বাবা!

এ বিষয়ে ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ(পশ্চিম) জানিয়েছেন, ‘‘আমরা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছি। যদিও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কেউ কোনও অভিযোগ করেননি। তবুও ভিডিয়োটি পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।’’ 

আরও পড়ুন: রাহুলকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে বিপাকে অভিনেত্রী