তিনি চান অপরাধ ও সামাজিক দুষ্কর্মের ব্যাপারে যুবসমাজ যেন সচেতন থাকে। তাই তাঁর লক্ষ্য অপরাধ থেকে সচেতনতার বার্তা যুবসমাজের কাছে পৌঁছে দেওয়া। সে জন্য ২০১২ সাল থেকে গান লিখছেন তিনি। তাঁর নাম নাগামাল্লু। তিনি তেলঙ্গানার এক জন ট্রাফিক পুলিশকর্মী

সামাজিক সচেতনতা নিয়ে তাঁর লেখা সেই সব গান তিনি ছড়িয়ে দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। তার পরই সে গুলিই এখন ঘুরে বেরাচ্ছে লোকের মুখে মুখে। তেলুগু ভাষায় লেখা তাঁর সেই গান তেলঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশের তেলুগুভাষী মানুষদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। শুধু তাই নয় এই দুই রাজ্যের বাইরের মানুষও তাঁর এই উদ্যোগের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তবে শুধুই নেটিজেনরা নয়, নাগামাল্লুর এই কাজে খুশি হায়দরাবাদ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষও।

হায়দরাবাদের এলবিনগরের কর্তব্যরত এই ট্রাফিক পুলিশ অফিসার তাঁর গান সম্পর্কে এক সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, ‘‘২০১২ থেকে গান লিখছি আমি। বিভিন্ন ধরনের অপরাধের উপর লেখা আমার গানগুলি, এখনকার যুবসমাজ বিনোদন মাধ্যমে বেশি আকৃষ্ট। তাই আমার মনে হয়েছে সামাজিক ব্যাধিগুলির মোকাবিলা করার জন্য সচেতনতা তৈরির এটাই শ্রেষ্ঠ উপায়।’’

আরও পড়ুন: লাঠিকে ডান্ডা নয়, বাঁশি হিসাবে ব্যবহার করে তাক লাগালেন এই পুলিশ কনস্টেবল

গত সাত বছরে তিনি প্রায় ২০টি গান তৈরি করেছেন। তার পর সেই সব গান আপলোড করেছেন ফেসবুক, ইউটিউবের মতো সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। আর এই কাজে তাঁকে সাহায্যে করেছে ২১ জন যুবদের একটি দল। তাঁর আরও দু’টি গান শীঘ্রই প্রকাশিত হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বেধড়ক পিটিয়ে গারদে পুরে সাংবাদিকের মুখে প্রস্রাব রেলপুলিশ কর্তার