বালাকোটকে সামনে রেখে ‘রাফাল’ কেনার পক্ষে সওয়াল করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বললেন, ভারতের হাতে যদি তখন রাফালের মতো সর্বাধুনিক যুদ্ধবিমান থাকত, তা হলে আর বালাকোটে ঢুকে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ শিবির গুঁড়িয়ে দেওয়ার প্রয়োজন হত না বিমানবাহিনীর। দেশে বলেই ভারতীয় বায়ুসেনা ওই কাজটা করে ফেলতে পারত।

মহারাষ্ট্রের ঠাণে জেলায় বিজেপির মনোনীত প্রার্থী নরেন্দ্র মেহতার হয়ে এক জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে এ কথা বলেন রাজনাথ।

রাজনাথের কথায়, ‘‘আমাদের হাতে রাফাল যুদ্ধবিমান থাকলে আমাদের আর বালাকোটে ঢুকে বিমান হানাদারি চালাতে হত না। ভারতে বসেই আমরা বালাকোটে হামলা চালাতে পারতাম।’’ তবে রাফাল যুদ্ধবিমানগুলি যে আগ্রাসনের জন্য নয়, আনা হচ্ছে শুধু আত্মরক্ষার জন্যই, সেই কথাও মনে করিয়ে দেন রাজনাথ।

রাফাল যুদ্ধবিমান কিনতে ফ্রান্সে গিয়ে তিনি যে ‘শস্ত্র পুজো’ করেছেন, সে কথা কবুল করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। বলেন, ‘‘আমি বিমানটিতে ‘ওম’ লিখি। একটি নারকেলও ভাঙি। সেটা করেছি ঐতিহ্য অনুসারে। আর ‘ওম’ তো চিরন্তন।’’

আরও পড়ুন- রাফালে ‘শস্ত্র পূজা’ এখন অস্ত্র প্রতিরক্ষামন্ত্রীর​

আরও পড়ুন- জঙ্গিদমনের সদিচ্ছা থাকলে সাহায্য করতে পারে ভারত, ইমরানকে পরামর্শ রাজনাথের​

কেন তা করেছেন, তারও ব্যাখ্যা দেন রাজনাথ। বলেন, ‘‘আমার বিশ্বাস অনুসারে কাজ করেছি। এমনকী, খ্রিস্টান, মুসলিম, শিখ-সহ অন্যান্য সম্প্রদায়ও ‘আমেন’, ‘ওঙ্কার’-এর মতো কয়েকটি শব্দ ব্যবহারের মাধ্যমে উপাসনা করে। আমি যখন রাফাল কিনতে গিয়ে ফ্রান্সে ‘শস্ত্র পুজো’ করেছি, তখনও খ্রিস্টান, মুসলমান, শিখদের মতো বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ সেখানে ছিলেন। বৌদ্ধরাও সেই অনুষ্ঠানে ছিলেন।’’ কংগ্রেস রাজনাথ সিংয়ের ওই ‘শস্ত্র পুজো’কে ‘নাটক’ বলে কটাক্ষ করেছে।

মঙ্গলবার ফ্রান্সের একটি অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী আনুষ্ঠানিক ভাবে ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে তুলে দেওয়ার জন্যে প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানটি গ্রহণ করেন। চুক্তি অনুযায়ী, ফ্রান্স মোট ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান সরবরাহ করবে ভারতকে। বিমানটি গ্রহণ করার পর রাফালে কিছুটা উড়েও দেখেন রাজনাথ।

রাফালে চড়ে কিছুটা উড়ে আসার পর রাজনাথ বলেন, ‘‘ওই বিমানে আমি এবং পাইলট ছাড়া আর কেউ ছিলেন না। আমি সুপারসনিক গতি কেমন, তা অনুভব করতে চেয়েছিলাম। পাইলটকে তাই সেই গতিতেই বিমানটিকে চালাতে বলেছিলাম।’’

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকারের সঙ্গে এই রাফাল যুদ্ধবিমানের ‘সুপারসনিক গতি’র তুলনা টেনে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘‘কংগ্রেস এবং এনসিপি-র শাসনে ‘সুপারসনিক গতি’তে দেশ অধঃপাতে গিয়েছিল। আর আমাদের সরকার ‘সুপারসনিক গতি’তে দেশকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে।’’