• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চিনা নজরদারির তদন্ত-রিপোর্ট ৩০ দিনেই, জানালেন বিদেশমন্ত্রী

Jaishankar Reassures Congress MP of Govt Action on China Snooping
বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর— ফাইল চিত্র।

বিরোধীদের চাপের মুখে চিনা সাইবার নজরদারির অভিযোগ প্রসঙ্গে সাফাই দিল কেন্দ্র। সরকারি সূত্রের খবর, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর কংগ্রেস সাংসদ কে সি বেনুগোপালকে লেখা চিঠিতে অভিযুক্ত চিনা সংস্থার বিরুদ্ধে সরকারি পদক্ষেপ করা হবে বলে জানিয়েছেন।

 ভারতের রাজনীতি, বিচার ব্যবস্থা, প্রশাসন এমনকি, সংবাদমাধ্যম ও বাণিজ্যক্ষেত্রের মোট ১০ হাজার প্রভাবশালী ব্যক্তির উপর গোপনে নজরদারি চালাচ্ছে একটি চিনা তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা। লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) ভারত ও চিনা সেনার টানাপড়েনের মধ্যেই চলতি সপ্তাহে এই খবর প্রকাশ করে একটি সর্বভারতীয় দৈনিক। সেই প্রতিবেদন প্রকাশের পরেই গোটা বিষয়টি নিয়ে তদন্তের দাবি তোলে কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা।

মঙ্গলবার এআইসিসির সাধারণ সম্পাদক বেনুগোপালকে লেখা চিঠিতে বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্কর জানিয়েছেন, ‘‘একটি চিনা সংস্থা কয়েক হাজার ভারতীয়ের অনলাইন কার্যকলাপের উপর নজরদারি চালাচ্ছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা খতিয়ে দেখতে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়া হয়েছে।’’ বেনুগোপাল বৃহস্পতিবার টুইটারে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের তরফে তাঁকে জানানো হয়েছে, ৩০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে তদন্তের কাজ শেষ করা হবে।

চিনের শেনঝেনের তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থা ‘শেনহুয়া ডেটা ইনফরমেশন টেকনোলজি কোম্পানি লিমিটেড’-এর বিরুদ্ধে ভারতে ব্যাপক আকারে সাইবার নজরদারি চালানোর অভিযোগ তোলা হয়েছিল প্রকাশিত সংবাদে। সূত্রের খবর, ‘ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি কোঅর্ডিনেটরের নেতৃত্বাধীন ওই কমিটি শেনহুয়ার বিরুদ্ধে তদন্ত চালাচ্ছে।

 বিদেশমন্ত্রকের একটি সূত্র জানাচ্ছে, ভারতে নিযুক্ত চিনা রাষ্ট্রদূত সান ওয়েডং এ বিষয়ে দায় এড়িয়েছেন ইতিমধ্যেই। তিনি জানিয়েছেন, শেনহুয়া একটি বেসরকারি সংস্থা, তাই ওই সংস্থার কার্যকলাপের দায় চিন সরকারের নয়। যদিও অভিযোগ, সংস্থাটির থেকে তথ্য সংগ্রহ করে চিনের সরকার, পিপলস লিবারেশন আর্মি এবং শাসকদল কমিউনিস্ট পার্টি।

আরও পড়ুন: ‘প্রথমে ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে গুরুত্ব দেওয়া দরকার’, সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্র

শেনহুয়া বিশ্বজুড়ে প্রায় ২৪ কোটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির উপর একটি ডেটাবেস তৈরি করেছে বলে অভিযোগ। এই তালিকায় আমেরিকা, ব্রিটেন, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জার্মানি, সংযুক্ত আরব আমিরশাহির মতো দেশগুলির বিশিষ্ট ব্যক্তিরা রয়েছেন। এই ‘ওভারসিজ় কি ইনফরমেশন ডেটাবেস’ বিশ্লেষণের জন্য বিভিন্ন দেশে শেনহুয়ার ২০টি প্রসেসিং সেন্টার রয়েছে।

আরও পড়ুন: মোদী-মমতা-সনিয়া থেকে তেন্ডুলকর, সবার উপর গোপন নজরদারি চিনের!

চিনা বিদেশ দফতরের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন অবশ্য শেনহুয়াকে ক্লিনচিট দিয়ে বলেছেন, ‘‘বিশ্বজুড়ে তথ্য সরবরাহ করাই বেসরকারি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাটির কাজ। বিভিন্ন বাণিজ্যিক এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে তারা তথ্য সরবরাহ করে। চিন সরকার সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন