বেঙ্গালুরু বিমানবন্দরের কাছে একটি গ্রাম থেকে ৩১ জুলাই উদ্ধার হয়েছিল কলকাতার তরুণী পূজা সিংহ দে (৩২)-র দেহ। সেই হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার হল এইচ এম নাগেশ নামে স্থানীয় এক ক্যাবচালক। পুলিশ জানিয়েছে, গাড়ির ইএমআই-এর টাকা মেটাতেই পূজাকে নিজের ট্যাক্সিতে তুলে লুটপাটের পরিকল্পনা করেছিল নাগেশ। টাকা দিতে না-চাওয়ায় তাঁকে খুন করে সে।

ঘটনাস্থল থেকে নিহতের ঘড়ি ও জুতো ছাড়া কিছু না-মেলায় তরুণীর পরিচয় নিয়ে ধন্দে পড়ে পুলিশ। ওই জিনিসপত্রের সূত্র ধরেই দিল্লি ও কলকাতা যায় পুলিশের দু’টি দল। কলকাতায় এক তরুণীর নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগও হাতে আসে। চিহ্নিত করা যায় পূজাকে। তাঁর কল লিস্ট ও ই-মেল খতিয়ে দেখে ২১ অগস্ট নাগেশকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে সে দোষ স্বীকার করে।

৩০ জুলাই হোটেলে ফেরার জন্য ক্যাব বুক করেছিলেন মডেল তথা ইভেন্ট ম্যানেজার পূজা। নাগেশকে তিনি বলে রাখেন, পরের দিন ভোরে বিমানবন্দরে পৌঁছে দিতে। কিন্তু নাগেশ পূজাকে নিয়ে যায় ফাঁকা এলাকায়। টাকা ও অন্যান্য দামী জিনিস দাবি করে সে। পূজা চিৎকার করায় মাথায় রডের বাড়ি মেরে অজ্ঞান করে দেয় তাঁকে। জ্ঞান ফিরতেই পূজা পালাতে যান। তখন তাঁকে কুপিয়ে খুন করে নাগেশ। পুলিশের অনুরোধ— ব্যক্তিগত ভাবে নয়, সবাই যেন সরাসরি অ্যাপ থেকেই ক্যাব বুক করেন।