জাতপাতে বিশ্বাস করি না, ডিম্পলকে বিয়ে করাই তার প্রমাণ: অখিলেশ
যাদবদের জন্য আলাদা রেজিমেন্টের দাবি তোলার সঙ্গে জাতপাতের কোনও সম্পর্ক নেই বলেও দাবি করেন অখিলেশ।
Dimple Yadav

ডিম্পল ও অখিলেশ যাদব। ফাইল চিত্র।

তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা জাতপাতের রাজনীতির অভিযোগ ওড়ালেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব। আর তা প্রমাণ করতে তিনি সামনে আনলেন ডিম্পলকে বিয়ে করার উদাহরণ। একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বললেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যাওয়ার ভয়েই তাঁর বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলার চেষ্টা করছে বিজেপি।’’

চলতে থাকা লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে আটকাতে গাঁটছড়া বেঁধেছে উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজ পার্টি। তাঁদের সঙ্গে সামিল হয়েছে জাঠ নেতা অজিত সিংহের রাষ্ট্রীয় লোকদলও। মায়াবতী এবং অখিলেশ যাদবের লক্ষ্য জাঠ-যাদব-মুসলিম-নিম্নবর্গের ভোটকে এককাট্টা করা। লোকসভা নির্বাচনে জাতপাতের এই সমীকরণ কাজ করলে উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে বড় ধসের মুখোমুখি হতে পারে বিজেপি। তাই শুরু থেকেই অখিলেশ ও মায়াবতীর বিরুদ্ধে জাতপাতের রাজনীতি করার অভিযোগ তুলছে গেরুয়া শিবির।

তার জবাব দিতেই রবিবার ডিম্পলকে বিয়ে করার প্রসঙ্গ আনলেন অখিলেশ। টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তিনি বললেন, ‘‘আমি যে জাতপাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না, তার সব থেকে বড় উদাহরণ ডিম্পলকে বিয়ে করা। আমাদের জাত আলাদা হলেও আমরা জাতপাতের বেড়াজাল ভেঙে বিয়ে করেছিলাম।’’

আরও পড়ুন: নিশ্চিন্ত অখিলেশ, বাহুবলী খুইয়ে ছাপ্পান্ন ইঞ্চির ভরসায় পদ্ম 

এর পরেই অখিলেশকে প্রশ্ন করা হয়, জাতপাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস না করলে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে তিনি যাদব রেজিমেন্ট থাকা উচিত বলে দাবি করছেন কেন? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘আমি একবার গুজরাতে গিয়ে দেখেছিলাম, ওখানকার আহির সম্প্রদায়ের মানুষ আহির রেজিমেন্টের দাবি করছেন। আমার স্ত্রী ডিম্পল হিমালয়ের গঢ়বাল অঞ্চলের বাসিন্দা। ডিম্পল আমাকে বলে, ‘সবাই গঢ়বাল রেজিমেন্টের কথা জানে’। তখনই আমার মনে হয়েছিল, যাদবদের জন্যও তো তাহলে আলাদা রেজিমেন্ট করা যেতে পারে।’’ যাদবদের জন্য আলাদা রেজিমেন্টের দাবি তোলার সঙ্গে জাতপাতের কোনও সম্পর্ক নেই বলেও দাবি করেন অখিলেশ।

আরও পড়ুন: গরম কড়াই থেকে জ্বলন্ত উনুনে নয়, আর্জি বুদ্ধের

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত