ইমরানের বার্তা ভাবী সরকারকে
সম্প্রতি ইমরান বলেছেন, গোটা উপমহাদেশের শান্তি এবং সুস্থিতির প্রধান অন্তরায় হল পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক।
Imran Khan

ছবি: রয়টার্স।

ভারতে লোকসভা ভোট শেষ হওয়ার পরেই কিরগিজস্তানে এসসিও (সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন)-র শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়ার কথা নতুন প্রধানমন্ত্রীর। সেই সম্মেলনে উপস্থিত থাকার কথা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানেরও। ওই মঞ্চে কাশ্মীর নিয়ে স্বর তোলার আগে ভারতের ভাবী সরকারের উদ্দেশে কড়া বার্তা দিয়ে রাখলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। 

সম্প্রতি ইমরান বলেছেন, গোটা উপমহাদেশের শান্তি এবং সুস্থিতির প্রধান অন্তরায় হল পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক। লোকসভা ভোট মিটে গেলে দিল্লির সঙ্গে একটি ‘সভ্য সম্পর্ক’ স্থাপন করা যাবে বলে তিনি আশাবাদী বলে জানিয়েছেন ইমরান।  

দিন কয়েক আগেই ওবর সম্মেলনে গিয়ে ইমরান বৈঠক করেছেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি চিনফিংয়ের সঙ্গে। আর তার পরেই ইমরান সরব হয়েছেন দক্ষিণ এশিয়ার ভূকৌশলগত রাজনীতি নিয়ে। ইমরানের বক্তব্য, ‘‘আফগানিস্তানে যা হচ্ছে তাতে আমাদের সীমান্তে সমস্যা হচ্ছে। তাই আমরা শান্তিপূর্ণ এলাকা তৈরি করার চেষ্টা করছি। ইরানের সঙ্গেও আমরা সুসম্পর্ক গড়ার পথে হাঁটছি। একটাই সমস্যার জায়গা, তা হল ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক। আশা করছি ভারতের সঙ্গেও সভ্য সম্পর্ক গড়ে তোলা যাবে।’’ 

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে এর আগে কিছুটা অযাচিত ভাবেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, নরেন্দ্র মোদী ফের ক্ষমতায় এলে দু’দেশের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি সহজ হবে।   

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত