আফগানিস্তানের শান্তি প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের প্রশ্নে‌ কি কোণঠাসা হয়ে পড়ল ভারত?

এই প্রশ্নটি নিয়ে সরব হচ্ছেন বিরোধীরা। আজ কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা এই প্রশ্নটি তুলে বলেছেন ভারতের বিদেশনীতিতে ফাটল প্রকট হচ্ছে।

গোটা ঘটনার সূত্রপাত গত সপ্তাহের শেষে একটি চর্তুপাক্ষিক বৈঠক থেকে। আমেরিকা, রাশিয়া, চিন এবং পাকিস্তান বেজিং-এ একটি বৈঠকে বসেছিল আফগানিস্তানের শান্তি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার কৌশল স্থির করতে। ওই বৈঠকে পাকিস্তানকে ডাকা হলেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি ভারতকে। অথচ ভারত গত কয়েক বছর ধরে কাবুলের শান্তি প্রক্রিয়ায় এবং যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের পুনর্গঠনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে এসেছে। এ নিয়ে আলাদা ভাবে আমেরিকার সঙ্গেও বহু বার আলোচনা করেছে নয়াদিল্লি। 

আজ বেজিং-এর পক্ষ থেকে স্তোকবাক্য দিযে বলা হয়েছে যে এর ফলে ভারতের শঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণে নেই। নয়াদিল্লি গোটা প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র গেং সুনাং আজ বলেছেন, ‘‘চারটি দেশের আলোচনার সময় ভারতের প্রসঙ্গ এসেছে। আফগান সমস্যার সমাধানের জন্য ভারতের সহযোগিতা প্রয়োজন। চিন ভারত-সহ সংশ্লিষ্ট সমস্ত দেশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে।’’ বিদেশ মন্ত্রক এখনও মুখ খোলেনি। তবে নরেন্দ্র মোদী সরকারের প্রথম দফার শেষ দিক আফগানিস্তানে ভারতের ভূমিকা কিছুটা গৌণ হয়ে গিয়েছিল বলেই ধারণা কূটনীতিকদের।