উপত্যকায় এ বার আট লস্কর-ই-তৈবা জঙ্গির নাগাল পেল পুলিশ। সোমবার দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপোর থেকে তাদের গ্রেফতার করেছে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের একটি শাখা। বেশ কিছু দিন ধরে ওই এলাকায় তারা গা ঢাকা দিয়েছিল বলে অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দাদের ভয় দেখানো এবং প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

গ্রেফতার হওয়া ওই আট জঙ্গিকে এজাজ মীর, ওমর মীর, তৌসিফ নজর, ইমতিয়াজ নজর, ওমর আকবর, ফয়জান লতিফ, দানিশ হাবিব এবং শওকত আহমেদ মীর বলে শনাক্ত করা গিয়েছে। তাদের কাছ থেকে একাধিক কম্পিউটার উদ্ধার হয়েছে। পাওয়া গিয়েছে পোস্টার ছাপানোর যন্ত্রপাতিও। স্থানীয় মানুষকে ভয় দেখাতে জায়গায় জায়গায় পোস্টার লাগানোই তাদের উদ্দেশ্য ছিল বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

এর আগে, শনিবার সোপোরেরই এক ফল ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা চালায় এক দল জঙ্গি। তাতে দু’বছরের এক শিশুকন্যা-সহ চার জন গুরুতর জখম হন। কে বা কারা সেই হামলা ঘটিয়েছিল, তা এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত ভাবে জানা না গেলেও, স্থানীয় মানুষের মধ্যে ভীতি সঞ্চার করতে এবং উপত্যকার শান্তি নষ্ট করতেই হামলা চালানো হয় বলে ধারণা পুলিশের। 

আরও পড়ুন: এ বার চেন্নাই থেকে গ্রেফতার জেএমবি জঙ্গি বর্ধমানের আসাদুল্লা​

আরও পড়ুন: কমাতে হবে অতিরিক্ত ভার, শিয়ালদহ সেতুতে পণ্যবাহী ভারী যান নিষিদ্ধ করার সুপারিশ​

গত ৫ অগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ করে কেন্দ্রীয় সরকার। তার পর থেকে গত দেড় মাস ধরে কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে রাখা হয়েছে গোটা উপত্যকা। টেলিফোন এবং ইন্টারনেট পরিষেবাও সম্পূর্ণ বন্ধ রাখা হয়েছে। গৃহবন্দি করা হয়েছে ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতি-সহ একাধিক রাজনীতিককে।  তার মধ্যেই এই ঘটনায় নতুন করে উত্তেজনা বেড়েছে। তবে শুধু মাত্র কাশ্মীরই নয়, বরং পাক মদতে পুষ্ট জঙ্গিরা জলপথে দক্ষিণ ভারতেও হামলার ছক কষছে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা।