সাংবাদিকদের সামনেই এক সরকারি আধিকারিককে ব্যাট দিয়ে বেধড়ক পেটালেন মধ্যপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক আকাশ বিজয়বর্গীয়। সম্পর্কে তিনি পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় ছেলে। বুধবার ঘটনাটি ঘটে ইনদওরে। পরে আকাশকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

জবরদখল বিরোধী অভিযানে গিয়েছিলেন মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ওই আধিকারিক। সেই সময়েই আকাশের সঙ্গে তাঁর কথা কাটাকাটি হয়। ওই আধিকারিককে শাসাতেও দেখা যায় আকাশকে। পাঁচ মিনিটের মধ্যে সেখান থেকে চলে না গেলে পরের ঘটনার দায় ওই আধিকারিককেই নিতে হবে — এমন কথাও বলতে শোনা যায় আকাশকে।   

এর পরই আধিকারিকের দিকে ব্যাট নিয়ে তেড়ে যান কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে। বেশ কয়েক ঘা মারতেও দেখা যায় তাঁকে। গোটা ঘটনাটি সাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। ‘গুন্ডাগিরি’র এই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সরগরম হয়ে উঠেছে মধ্যপ্রদেশের রাজ্য-রাজনীতিও। ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, জনপ্রতিনিধি হয়ে কী ভাবে এক জন সরকারি আধিকারিকের গায়ে হাত তোলার সাহস দেখালেন ওই বিজেপি বিধায়ক!

 

যদিও এই ঘটনার জন্য পৌরসভার আধিকারিককেই দায়ী করছেন বিজেপি নেতা হিতেশ বাজপেয়ী। তিনি বলেন, ‘‘ওই আধিকারিক ঘুষ চাইছিলেন। আকাশ তার প্রতিবাদ করেন। তখনই এই ঘটনা ঘটেছে।” পাশাপাশি, তিনি এটাও বলেন, ব্যাট দিয়ে মারার জন্য আকাশকে জেলে ভরতে পারেন। কিন্তু যে আধিকারিক ঘুষ চাইল তাঁর  কী শাস্তি হবে?”

আরও পড়ুন: যোধপুর পার্কের বিশাল ফ্ল্যাট হাতাতেই বৃদ্ধা খুন, ডায়েরির সূত্রে গ্রেফতার প্রতিবেশী

আরও পড়ুন: জেসিবি মেশিন দিয়ে ঘর ভাঙার সময় দেওয়াল চাপা পড়ে শিশুর মৃত্যু, উত্তেজনা নোনাডাঙায়

আকাশের দাবি, ওই আধিকারিক এক মহিলাকে গালিগালাজ করছিলেন। তাঁর হাত ধরে টানাটানিও করছিলেন। এই ঘটনা দেখার পর প্রচন্ড রাগ হয়েছিল। সেই রাগের বশেই এমন কাজ করে ফেলেছেন তিনি।

এ দিকে, সহকর্মীকে মারার ঘটনায় বিক্ষোভ দেখান পৌর নিগমের কর্মীরা। কাজ বন্ধ করে দেন। সেই সঙ্গে আকাশের শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তাঁরা