কর্মরত সব মানুষকেই জীবনে কখনও না কখনও এক-আধ দিন ছুটি নিতে হয়। কিন্তু এমনও এক মহিলা আছেন যিনি গত ১১ বছরে অতিরিক্ত একটিও ছুটি নেননি। তবে চমক এখানে নয়, এই ১১টি বর্ষাকালে তাঁকে প্রতিদিন এক গলা জল পেরিয়ে যেতে হয় কর্মস্থলে।

ওড়িশার রথিয়াপাল প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষিকা বিনোদিনী সামাল। ২০০৮ সালে এই স্কুলে  যোগ দেন। সেই থেকে সরকারি ছুটি ছাড়া প্রতিদিন স্কুলে উপস্থিত থেকেছেন তিনি। যাতায়াতের পথে পড়ে সাপুয়া নদী। বর্ষাকালে বেশ কয়েক ফুট বেড়ে যায় এর জল। তাই বর্ষাকালে তাঁকে সাপুয়া নদীর এক-গলা জল পেরিয়ে স্কুলে যান বিনোদিনী। আর তাঁর এই গলা জল পেরিয়ে স্কুলে যাওয়ার ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। সেই ছবি ভাইরাল হয়ে যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সেই ছবি নজরে আসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানের।শিক্ষিকা বিনোদিনীর এই দায়বদ্ধতার প্রশংসা করেছেন তিনি। এই ছবিগুলি ভাইরাল হওয়ার পর জেলা প্রশাসন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, দ্রুত ওই নদীর উপর একটি সেতু তৈরি করে দেওয়া হবে। যাতে ওই শিক্ষিকাকে বর্ষাকালে আর জল পেরিয়ে স্কুলে যেতে না হয়।

আরও পড়ুন : সাপ নিয়ে মোদীকে হুমকি দেওয়া পাক গায়িকার দু’বছরের জেল

আরও পড়ুন : নতুন ট্রাফিক আইন কার্যকর হওয়ার আগেই সাড়ে ছ’লক্ষ টাকার জরিমানা একটি ট্রাককে

বিনোদিনীর ঘটনা জানার পর হিন্দোলের বিধায়কবলেন, শিক্ষিকার এই দায়বদ্ধতাকে সেলাম। তিনিও জানিয়েছেন দ্রুত এই সেতু নির্মাণের কাজ হবে। গত বছর মার্চেই এই সেতু নির্মাণের জন্য ২ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। কিন্তু বর্ষা এসে যাওয়ায় কাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি। বিজু সেতু যোজনার অন্তর্গত এই সেতু নির্মাণ প্রকল্পটি দ্রুত শেষ করা হবে।