হরিয়ানার সোনিপতে গণধর্ষণের শিকার হল এক দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। অভিযোগ নির্যাতিতার এক বান্ধবীর বয়ফ্রেন্ড ও বয়ফ্রেন্ডের কয়েকজন বন্ধু মিলে ধর্ষণ করেছে। ধর্ষণের আগে ওই কিশোরীকে মাদক খাইয়ে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। ১৮ জুলাইয়ের ঘটনা। অভিযোগ দায়ের হলেও এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

নির্যাতিতা, হরিয়ানার সোনিপতের মহিলা থানায় অভিযোগে জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সোনিপতে কিছু বই ও ওষুধ কেনে। তারপর তার এক বান্ধবীকে ফোন করে দেখা করার জন্য। বান্ধবী তার বাড়িতে চলে আসতে বলে। বান্ধবী বলে তাঁর বয়ফ্রেন্ড বিকাশের নম্বর দিচ্ছে। বিকাশের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার সঙ্গে গাড়িতে করে চলে আসতে বলে। সেই মতো বিকাশকে ফোন করে নির্যাতিতা কিশোরী।

বিকাশ গাড়ি নিয়ে পৌঁছে যায় ওই কিশোরীর কাছে। গাড়িতে ওঠার পর কিশোরীকে একটি ঠান্ডা পানীয় দেয় বিকাশ। অভিযোগ সেই ঠান্ডা পানীয়তেই মাদক মেশানো ছিল। খাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই অচ্ছন্ন হয়ে পড়ে কিশোরী।

আরও পড়ুন : স্বামীকে খাটের সঙ্গে বেঁধে পুড়িয়ে খুন! আরামবাগে প্রেমিক-সহ গ্রেফতার স্ত্রী

আরও পড়ুন : ‘হাঁপানি রোগী’ প্রিয়ঙ্কার সিগারেট খাওয়ার ছবি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

নির্যাতিতা কিশোরী জানিয়েছেন, গাড়ির মধ্যেই বিকাশ প্রথমে তাঁকে ধর্ষণ করে। তারপর তাঁকে একটি অ়়জ্ঞাত জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে বিকাশের কয়েক জন বন্ধুও তাঁকে ধর্ষণ করে।

সোনিপত মহিলা থানায় সিআরপিসি, আইপিসি ও পকসো আইনে বিকাশ ও তাঁর বন্ধুদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। তবে পুলিশ জানিয়েছে, খুব শীঘ্রই অভিযুক্তরা গ্রেফতার হবে। অভিযুক্তদের পাশাপাশি নির্যাতিতার বান্ধবীকেও জেরা করা হবে। পুলিশ খতিয়ে দেখছে, এই ঘটনায় নির্যাতিতার ওই বান্ধবীর কোনও ভূমিকা আছে কিনা!