টিকটক ভিডিয়ো প্রকাশ করে এক যুবতী বিপদে ফেললেন দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের এক ড্রাইভার, কন্ডাক্টার ও মার্শালকে। ডিটিসি-র একটি বাসের ভেতর নাচের ভিডিয়ো রেকর্ড করেন এক যুবতী। ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে এক পরিবহণ কর্মীকেও। তারপরই পদক্ষেপ করে ডিটিসি।

ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে এক জনপ্রিয় হরিয়ানভি গানে শরীর দোলাচ্ছেন এক যুবতী। আর তার সামনেই হাসি মুখে দাঁড়িয়ে নাচ দেখছেন উর্দি পরা এক পরিবহণ কর্মী। এমনকি, ভিডিয়োর শেষের অংশে দেখা যাচ্ছে বাসের সামনে দাঁড়িয়েও নাচছেন ওই যুবতী আর সেখানেও দাঁড়িয়ে রয়েছেন ওই কর্মী। ওই কর্মীর চারদিকে ঘুরে ঘুরে নাচছেন ওই যুবতী। আর তা হাসি মুখে রীতিমতো উপভোগ করছেন ডিটিসির ওই কর্মী।

দিল্লির জনকপুরীতে ১২ জুলাই এই ভিডিয়ো রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় ওই বাসের ড্রাইভারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। কন্ডাক্টরকে কারণ দর্শানর নোটিস ধরানো হয়েছে। এবং বাসের মার্শালকে সিভিল ডিফেন্স অফিসে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন : ‘মোটা মহিলারা স্বর্গে যেতে পারবেন না’

আরও পড়ুন : পা দিয়ে হাই-স্পিড ট্রেন থামাচ্ছেন চিনা মহিলা!

 

ডিটিসির এক আধিকারিক জানিয়েছেন, কন্ডাক্টর চুক্তি ভিত্তিতে কাজ করেন। তাঁর কাছে নোটিস দিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে কেন এই কাজ করা হয়েছে। এটি সরকারি সম্পত্তির অপব্যবহার হিসেবে দেখা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ওই তিন কর্মীর কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ আনা হয়েছে। যা হয়েছে তাতে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের ভাবমূর্তি মলিন হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সংস্থার ওই আধিকারিক।