• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এনআরসি তালিকায় নাম খুঁজবেন কী ভাবে, নাম না থাকলে কী করতে পারেন

nrc
তালিকায় নাম আছে তো? খুঁজতে ব্যস্ত। ছবি: পিটিআই।

অসমের জাতীয় নাগরিক পঞ্জির (এনআরসি) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর উদ্বেগ আর আশঙ্কাটা বাড়ল বই কমল না। শনিবার চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পরেই দেখা যায় কারও মুখে হাসি ফুটেছে, তো কেউ আবার চরম উত্কণ্ঠায় ডুবে গিয়েছেন। ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত তালিকা থেকে ১৯ লক্ষ লোকের নাম বাদ পড়েছেন। আর এই বাদ পড়া মানুষগুলোই এখন ঘোর সংশয়ে— কী হবে তাঁদের ভবিষ্যৎ, কী ভাবে নিজেদের নাগরিক হিসেবে প্রমাণ করবেন! তালিকায় নাম আছে কি না তা নিশ্চিত হতে কী করতে হবে সেটাও জানিয়ে দিয়েছে সরকার। পাশাপাশি, তালিকা থেকে বাদ পড়া মানুষদের জন্য কয়েকটি প্রক্রিয়ার কথা বলেছে তারা।

কী সেই প্রক্রিয়া দেখে নেওয়া যাক—

 

• তালিকায় নাম রয়েছে কি না তা জানতে এনআরসি-র ওয়েবসাইটে যেতে হবে। সেখান থেকে স্টেটাসটা জানতে পারবেন নাগরিকরা। যাঁদের ইন্টারনেট সংযোগ নেই তাঁরা সরকার পরিচালিত এনআরসি সেবাকেন্দ্রে গিয়ে নিজেদের স্টেটাস দেখতে পারবেন। এনআরসি-র ওয়েবসাইট-  http://www.nrcassam.nic.in

• সরকারের তরফে বলা হয়েছে, তালিকায় যাঁদের নাম ওঠেনি তাঁরা ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে পারবেন।

• সেই আবেদনের সময়সীমা ৬০ দিন থেকে বাড়িয়ে ১২০ দিন ধার্য করা হয়েছে। তার মধ্যেই আবেদন জানাতে বলা হয়েছে ওই সব ব্যক্তিদের।

• প্রশ্ন উঠছে এনআরসি তালিকায় বাদ পড়লেই কি বিদেশি বলে দেগে দেওয়া হবে? তেমনটা অবশ্য নয় বলেই জানানো হয়েছে। সব আইনি প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত তালিকায় বাদ পড়া মানুষগুলোকে বিদেশি বলা যাবে না।  

আরও পড়ুন: অসমে চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা প্রকাশ, বাদ পড়লেন ১৯ লক্ষ

আরও পড়ুন: একাধিক ব্যাঙ্ককে মিশিয়ে দেওয়ার ঘোষণায় খুশি শিল্প, আন্দোলনে ব্যাঙ্ককর্মীরা

 

• ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে পারবেন তাঁরা। যদি কোনও ব্যক্তি ট্রাইব্যুনালে মামলাটি হেরে যান, তিনি প্রথমে হাইকোর্ট এবং পরে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থও হতে পারবেন।

• কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে বলা হয়েছে, এই বিষয়ে শুনানির জন্য রাজ্য জুড়ে ১ হাজার ট্রাইব্যুনাল গড়ে তোলা হবে। ইতিমধ্যেই ১০০ ট্রাইব্যুনাল খোলা হয়েছে। আরও ২০০টি ট্রাইব্যুনাল সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই খোলা হবে।

• এ ব্যাপারে আইনি সহায়তা দেবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। জেলা লিগাল সার্ভিসেস অথরিটি, লিগাল এড সার্ভিসের মাধ্যমে সহায়তা পাবেন তাঁরা। বিজেপি, কংগ্রেসের মতো রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও তাঁদের সহযোগিতা করবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন