পুত্র সন্তানের আশায় তান্ত্রিকের কাছে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হলেন এক মহিলা। রবিবার রাতে বিহারের বক্সার জেলার ঘটনা।

পুত্র সন্তানের আশায় ওই তান্ত্রিকের কাছে গিয়েছিলেন এক যুগল। সেখানেই এমন মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই মহিলা এবং তাঁর স্বামী উত্তরপ্রদেশের গাজিপুরের বাসিন্দা। গ্রামের লোকেদের মুখে শুনে উত্তরপ্রদেশ থেকে বিহারে এসেছিলেন ওই তান্ত্রিকের সঙ্গে দেখা করতে। তাঁদের ধারণা ছিল, ওই তান্ত্রিকের ওষুধ ম্যাজিকের মতো কাজ করে। পুত্র সন্তান তাঁদের হবেই।

সেই মতো রবিবার তাঁরা বিহারের ব্রক্ষ্মবাবা মন্দিরে এসে পৌঁছন। তান্ত্রিকের সঙ্গে দেখা করেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেকটা রাত হয়ে গিয়েছিল। তাই মন্দিরেই রাত কাটানোর সিদ্ধান্ত নেন।

আরও পড়ুন: অবশেষে রাজি মমতা, ৭৪ লক্ষ টাকা দিয়ে বাড়ির সামনে বসছে জোড়া ওয়াচ টাওয়ার

ওই মহিলার স্বামী জানান, রাতে ঘুমের মধ্যেই ঘরে ৫ থেকে ৬ জন ব্যক্তি ঢোকেন। তাঁর মুখে কাপড় চাপা দিয়ে দেন তাঁরা। তিনি অচৈতন্য হয়ে পড়েছিলেন। এর পরই তাঁর স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। পুলিশকে নির্যাতিতার স্বামী জানান, মুখে কাপড় দিয়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়ায় তিনি কোনওভাবেই স্ত্রীকে উদ্ধার করতে পারেননি।

পরদিন অর্থাৎ সোমবার সকালে বক্সার থানায় গিয়ে তাঁরা গণধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন। নির্যাতিতার বয়ান অনুযায়ী, পুলিশ ২ দু’জনকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের খোঁজ করছে পুলিশ।

বক্সারের এসপি উপেন্দ্রনাথ শর্মা জানান, নির্যাতিতাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর চিকিৎসা চলছে।