কম্পিউটার, রোবট, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আগামী দিনে বেশ কিছু চাকরি নিয়ে নেবে এ বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। ২০১৭ সালে একটি গবেষণা থেকে মনে করা হচ্ছে, বিশ্ব জুড়ে ২০৩০ সাল নাগাদ প্রায় ৮০ কোটি চাকরি চলে যাবে রোবটদের হাতে। ইতিমধ্যেই ক্যাশিয়ার, টেলিমার্কেটিং, আম্পায়ারিংয়ের মতো কাজের বড় একটা অংশ কম্পিউটার দ্বারাই নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে।

প্রযুক্তির অগ্রগতি মানেই কাজের ক্ষেত্রে মানুষের প্রয়োজন কমতে থাকা। আর যতই স্বয়ংক্রিয়তার দিকে আমরা এগিয়ে যাব, কর্মীদের প্রয়োজনীয়তাও ততই কমতে থাকবে। কিন্তু এমন কিছু কাজ আছে যা রোবটরা করতে পারবে না। কী সেই কাজগুলি?

ব্যক্তিত্বের প্রয়োজন রয়েছে যেখানে, এমন চাকরি রোবট কেড়ে নিতে পারবে না। যেখানে সমবেদনা, বিচার বিবেচনা, স্বাভাবিক প্রবৃত্তি, দক্ষ সম্পর্ক গড়ে তোলার মতো কাজ রয়েছে সেগুলি রোবটের হাতে যাবে না। ফলে বিভিন্ন তত্ত্বাবধায়ক, নার্স, ডাক্তার, এমনকি বিক্রেতার কাজ যাঁরা করেন তাঁদের চাকরি হারানোর ভয় নেই।

আরও পড়ুন : ‘বুদ্ধিমান’ যন্ত্রেরা এ বার নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেবে, আমরা তৈরি তো?

আরও পড়ুন : সোনি বাজারে এনেছে প্রভুভক্ত এই রোবট পোষ্য

কোনও চুক্তি সম্পন্ন করার কাজ, জটিল সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার যেখানে, সেখানে অদূর ভবিষ্যতে রোবটের সফল হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

মানবিক পরিকল্পনা, কৌশলগত দক্ষতা যেখানে যেখানে প্রয়োজন, যেমন রাজনীতি, পরামর্শদাতার কাজ বা ব্যবসা বাণিজ্যে যাঁরা যুক্ত তাঁরা পেশার দিক থেকে নিরাপদ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে ভবিষ্যৎ কে দেখেছে?