×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

জীবনের ঝুঁকি মানে শুধুই মৃত্যু নয়, বিমায় থাকুক অন্য ঝুঁকির প্রিমিয়ামও; জানুন কী ভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৩:৫৬


প্রতীকী চিত্র

জীবনের ঝুঁকি এড়াতে আপনি বিমা করাতে চান। সবার সঙ্গে কথা বলেছেন। কারণ, বাজারে এখন নানান রকম বিমা পাওয়া যায়। কোনটা কিনবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায়। বিমার এজেন্ট আপনার কাছে এসেছেন। আপনাকে বোঝাতে চাইছেন যে শুধু মারা যাওয়াটাই জীবনের ঝুঁকি নয়, আর আপনি ভাবছেন উনি আপনার কাছ থেকে বেশি প্রিমিয়াম আদায় করতেই এসব বলছেন। কিন্তু বুঝতে পারছেন না কী করবেন। তাই তো?

তো জীবনের ঝুঁকিটা নিয়ে আগে ভাবুন। বিমা কিন্তু সঞ্চয় নয়। বিমা কেনার আগে কিন্তু মন্ত্রের মতো এটা জপ করুন! আপনার ভাবনাটা এই ভাবে এগোতে পারে। জীবনের অন্যতম ঝুঁকি হচ্ছে হঠাৎ মৃত্যু। তাই জীবন বিমা কিনবেন সেটাই এড়াতে। এবার ভাবুন তো, জীবনের ঝুঁকি কি শুধুই মৃত্যু? আপনি কিন্তু ঝুঁকি মাপছেন আর্থিক দিক থেকে। এটাও মাথায় রাখতে হবে।রোজদিনই কাগজে পড়ছেন, রাস্তায় আচমকা মোটর বাইকে বা বাসের ধাক্কায় আহত হয়ে বিছানা থেকে উঠতে পারছেন না। অনেকে অথর্বও হয়ে যান। তখন? সেটাও তো জীবনের ঝুঁকি। তাই না? তখন রোজগারের চিন্তাও বড় হয়ে উঠবে।

ভাবুন তো আপনার অবর্তমানে আপনার পরিবারের অবস্থা। সাধারণ জীবন বিমা করলেন। সেটা তো করতেই হবে। আপনার অবর্তমানে আপনার পরিবার এক লপ্তে টাকা পেয়ে গেল। কিন্তু যদি এমন হয়, যে এরই সঙ্গে সামান্য বেশি টাকার বিনিময়ে পরিবারের মাসিক আয়েরও ব্যবস্থা হল। তাতে কিছুটা হলেও একটা পরিবারের একটা স্বস্তি হল। তাই না? তাই বিমা কেনার আগে ভেবে নিন নিজের চাহিদার কথা। আর সেই চাহিদা মিলিয়ে করুন বিস্তৃত জীবনের ঝুঁকিতে আর্থিক সংস্থানের ব্যবস্থাও। কিনুন আরও কিছু ‘রাইডার’ বা বিভিন্ন ঝুঁকি সামলানোর ব্যবস্থা একই বিমাতে। দেখা নেওয়া যাক এরকমই এক দু’টি রাইডার উদাহরণ হিসাবে:

Advertisement

অথর্ব হলে প্রিমিয়াম না দেওয়ার রাইডার

অনেকেরই এমন অ্যাক্সিডেন্ট হয় যে অথর্ব হয়ে যান। সেই রকম পরিস্থিতিতে বিমার প্রিমিয়াম দেওয়ায় অসুবিধার হযে ওঠে। তখন এই রাইডার কেনা থাকলে সুবিধা। এই রাইডার থাকলে এরকম অবস্থায় আপনাকে আর বাকি প্রিমিয়াম দিতে হবে না। একই সঙ্গে বহাল থাকবে বিমা যে সব শর্ত মেটাতে কিনেছিলেন তার সব কটাই।

অপঘাতে (অ্যাক্সিডেন্টাল ডেথ) মৃত্যু

অনেকেই প্রশ্ন করেন কেন এই রাইডার কিনব? মারা গেলে তো টাকা পাবই। ঠিকই। কিন্তু স্বাভাবিক মৃত্যু আর অপঘাতে মৃত্যুর মধ্যে যে আর্থিক খরচের ফারাক রয়েছে অনেকেরই তা মাথায় থাকে না। শুনতে খারাপ লাগে ঠিকই, কিন্তু অপঘাতে মৃত্যু হলে কিন্তু পরিবারের আর্থিক ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। শুধু হাসপাতালের খরচই নয়, সঙ্গে আরও নানান খরচের জায়গা থাকে যার মধ্যে না গিয়েই বলা যায় যে সামান্য অতিরিক্ত খরচে যদি এই রাইডারটি বিমার সঙ্গে কেনা যায়, তাহলে সাধারণ ভাবে প্রাপ্য টাকার সঙ্গে, অতিরিক্ত আরও কিছু পাওয়া যায় যা কিন্তু পরিবারের পক্ষে কাজের হয়ে দাঁড়ায়।
কিছু রাইডার এমনও আছে যাতে কোনও কারণে হাত বা পা বা যেকোনও অঙ্গহানির জন্য পাওয়া যায় ক্ষতিপূরণ যা পুনর্বাসনের সময়ে বিরাট সাহায্য করে। তাই বিমা কেনার সময়ে মাথায় রাখবেন এই রাইডার কেনার সম্ভাবনার কথাও।

মাসিক রোজগারের সুযোগ

কিছু রাইডার বা পুরো পলিসিই আছে যাতে আপনার পরিবারকে আপনার অবর্তমানে এক লপ্তে টাকা না দিয়ে দীর্ঘ মেয়াদী মাসিক রোজগারের ব্যবস্থা করে। অনেকেই মনে করেন যে পলিসি কেনার সময় এই জাতীয় রাইডারের খোঁজ করা ভাল। ভেবে দেখুন, এক লপ্তে টাকা হাতে এলে বিপদের সময় ফুৎকারে উড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল। আর এতে পরিবারের দীর্ঘ মেয়াদে পথে বসে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। তাই এই জাতীয় রাইডার বা পলিসি আপনার সঙ্গে থাকলে অনেক নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন আপনি।
আসলে মূল কথাটা হল জীবনের ঝুঁকিকে শুধু মৃত্যুর অঙ্কে না ভেবে তার বিভিন্ন সম্ভাবনাও ভাবুন। আর তার পরেই বিমার কেনার সিদ্ধান্ত নিন। তাতেই লাভ।



Tags:

Advertisement