• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দেশ

বিশাল মাইনের চাকরি ছেড়ে ১২০০ শিশুকে খাইয়ে চলেছেন এমবিএ পাশ মইনুদ্দিন

শেয়ার করুন
১৫ food
এমবিএ করেছিলেন। আকর্ষণীয় চাকরিও পেয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু মোটা মাইনের সেই চাকরি অন্য অনেকের কাছে লোভনীয় হলেও তাঁর কাছে ছিল না। তাঁর মন বরং পড়েছিল চালচুলোহীন শিশুগুলোর কাছে।
১৫ food
তাই চাকরি ছেড়ে তাদের কাছেই ছুটে গিয়েছেন তিনি। ১২০০ অনাথ শিশুর মুখে অন্ন তুলে দিচ্ছেন প্রতি মাসে।
১৫ food
হায়দরাবাদের ওই যুবকের নাম খওয়াজা মইনুদ্দিন। ৩৯ বছর বয়সে বহুজাতিক সংস্থার কাজ থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন। উদ্দেশ্য ছিল ‘ক্ষুধা মুক্ত ভারত’-এর স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করা।
১৫ food
খওয়াজা ২০১৭ সালে প্রথম এই পরিকল্পনা শুরু করেন আরও দুই বন্ধুর সঙ্গে। শ্রীনাথ রেড্ডি এবং ভগত রেড্ডি। তাঁরা তিন জন স্থির করেন, এই সংক্রান্ত একটা ইউটিউব চ্যানেল খোলার।
১৫ food
‘নবাব’স‌ কিচেন ফুড অফ অল অরফ্যানস‌্’ নামে ওই ইউটিউব চ্যানেলে অনাথ শিশুদের জন্য খাবার বানানো থেকে তাদের পরিবেশন করা, সবটাই দেখানো হয়। ১০ লক্ষেরও বেশি সাবস্কাইবার রয়েছে চ্যানেলটির।
১৫ food
মইনুদ্দিনই যাবতীয় রান্নার দায়িত্বে ছিলেন। আর দর্শকদের কাছে ভিডিয়ো পৌঁছনোর জন্য তাঁর দুই বন্ধু ক্যামেরার পিছনে লাগাতার কাজ করেন।
১৫ food
ব্ল্যাক ফরেস্ট কেক, চাউমিন, বিরিয়ানি, পাউভাজি, তন্দুরি চিকেন— প্রতি দিন অনাথ শিশুগুলোর মুখো নানা রকম সুস্বাদু খাবার তুলে দেন তিনি। রান্নার বই দেখে খাবার বানান।
১৫ food
কিন্তু ভাগ্য সব সময় সঙ্গ দেয় না। প্রতি মাসে হায়দরাবাদ জুড়ে ১২০০ শিশুর কাছে সুস্বাদু খাবার পৌঁছনোর খরচ অনেক। একটা সময় আসে যখন খরচের ধাক্কায় তাঁদের ইউটিউব চ্যানেল প্রায় বন্ধ হওয়ার মুখে দাঁড়িয়ে যায়। ভিডিয়ো আপলোডও প্রায় বন্ধ হয়ে যায়।
১৫ food
তখন তাঁদের চ্যানেলের এক সাবস্ক্রাইবার পরবর্তী ভিডিয়ো কবে আসবে তাঁদের কাছে জানতে চান। নিজেদের অসুবিধার কথাও তাঁরা খোলাখুলি তাঁকে বলেন।
১০১৫ food
দেশকে ক্ষুধা মুক্ত করার যে স্বপ্ন মইনুদ্দিন দেখেছিলেন, তা ভেঙে পড়তে দেখে ভীষণ হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। শেষে ওই সাবস্ক্রাইবারের পরামর্শেই যেন ফের নতুন করে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন তাঁরা।
১১১৫ food
ওই ব্যক্তি অন্য সাবস্ক্রাইবারদের কাছ থেকেই অর্থ সাহায্যের আবেদন করতে জানান। মইনুদ্দিনরাও ঠিক করেন শেষ একটা ভিডিয়ো তাঁরা চ্যানেলে আপলোড করবেন। যার বিষয়বস্তুই হবে তাঁদের বর্তমান পরিস্থিতি জানিয়ে সাহায্যের আবেদন করা।
১২১৫ food
এত দ্রুত যে ফল মিলবে, তা ভাবতেই পারেননি তাঁরা। নতুন ভিডিয়ো আপলোড করার এক ঘণ্টার মধ্যেই ১৮ জন তাঁদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেন। তারপর আর পিছনে তাকাতে হয়নি মইনুদ্দিনদের।
১৩১৫ food
চাকরি ছেড়ে কেন এই পরিকল্পনা? মইনুদ্দিন জানাচ্ছেন, “আমি যখন ট্রেনে করে অফিসে যেতাম, দেখতাম প্ল্যাটফর্মে অনেক শিশু ডাস্টবিন থেকে খাবার সংগ্রহের চেষ্টা করছে। এই স্মৃতি আমাকে তাড়া করছিল। কাজে মন লাগত না।”
১৪১৫ food
সাবস্ক্রাইবারদের থেকে সাহায্য পাওয়ার পর যে চলার পথ খুব মসৃণ হয়ে গিয়েছে তা নয়, মাঝে মধ্যেই নানা অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয় তাঁদের। কিন্তু অনাথ শিশুগুলোর মুখের হাসি সে পথের সমস্ত বাধা কাটিয়ে দেয়।
১৫১৫ food
সম্প্রতি একটা অনাথাশ্রমের শিশুদের থেকে তিনি জেনেছেন তারা কোনওদিন নুডলস খায়নি। তাদের জন্য তাই মইনুদ্দিনের পরবর্তী মেনু নুডলস।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর
আরও পড়ুন