বিদায়ী টেস্টে শতরান করলেন অ্যালেস্টেয়ার কুক। আর সেটাও এল জীবনের শেষ টেস্ট ইনিংসে। বিদায়বেলা মধুর হয়ে থাকল ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়কের।

৩৩ বছর বয়সী আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন যে কেনিংটন  ওভালেই জীবনের শেষ টেস্ট খেলতে চলেছেন তিনি। প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ৭১। বড় রানের লক্ষ্যেই এগোচ্ছিলেন। কিন্তু পারেননি। সেই আক্ষেপ মেটালেন সোমবার। পঞ্চম টেস্টের চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনে পূর্ণ করলেন সেঞ্চুরি।

ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসে লড়াকু ব্যাটিংয়ে পৌঁছলেন ৩৩ তম শতরানে। ৯৬ রানে দাঁড়িয়ে হনুমা বিহারীকে কাট করেছিলেন তিনি। জসপ্রীত বুমরার ওভারথ্রোয়ে বল পৌঁছয় সীমানায়। পাঁচ রান পান তিনি। পৌঁছন তিন অঙ্কের রানে।

আরও পড়ুন: দল হারছে, তবু শাস্ত্রীকে তিন মাসের অগ্রিম বোর্ডের​

আরও পড়ুন: রিভিউয়ে ধোনির অভাব হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন কোহালি!

দৌড়তে দৌড়তেই হাসি মুখে দুই হাত ওপরে তোলেন কুক। সঙ্গে সঙ্গে হাততালিতে ফেটে পড়ে গোটা মাঠ। যা চলে কয়েক মিনিট। ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট উল্টোদিক থেকে এসে জড়িয়ে ধরেন তাঁকে। ইংল্যান্ড ড্রেসিংরুমে উচ্ছ্বসিত দেখায় জেমস অ্যান্ডারসনদের। কুক ডান হাতে ব্যাট তুলে গ্রহণ করেন জনতার অভিবাদন।

পরিবারের উপস্থিততে বিদায়ী টেস্ট ইনিংসের শতরান কুকের কাছে স্পেশ্যাল হয়ে উঠছে। প্রথম টেস্টে ও শেষ টেস্টে শতরান করেছেন, এই তালিকায় কুক হলেন পঞ্চম। আর প্রথম টেস্টের মতো শেষ টেস্টের শতরানও এল ভারতের বিরুদ্ধে। এদিনই কুমার সঙ্গাকারাকে (১২,৪০০ রান) টপকে গেলেন তিনি। টেস্ট ইতিহাসে পঞ্চম সর্বাধিক রানসংগ্রহকারী তিনি। কুক শেষ পর্যন্ত আউট হলেন ১৪৭ রানে। ২৮৬ বলের ইনিংসে মারলেন ১৪ বাউন্ডারি। হনুমা বিহারীর বলে উইকেটকিপার ঋষভ পন্থকে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন তিনি।

 শতরান করলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুটও। তিনি করলেন ১২৫ রানে। এটা কুকের কেরিয়ারে ১৪তম টেস্ট শতরান। রুটকেও ফেরালেন হনুমা বিহারী।

চায়ের বিরতির আগে এই প্রতিবেদন লেখার সময় ইংল্যান্ড ছয় উইকেট হারিয়ে তুলেছে ৩৫৭। লিড প্রায় চারশো। ৩৯৭ রানে এগিয়ে ইংল্যান্ড। যা পরিস্থিতি, তাতে এই টেস্টেও ভারতের সামনে পরাজয় অপেক্ষা করছে বলে মনে করছে ক্রিকেটমহল। ইংল্যান্ড আগেই ৩-১ এগিয়ে রয়েছে  সিরিজে। এই টেস্টেও জিতলে সিরিজ ৪-১ করবেন রুটরা।

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল, টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলাবিভাগে।)